প্রায় ৩৫ বছর পর গ্রামে বসেছে হাট, খুশি গ্রামবাসীরা

176

রায়গঞ্জ: প্রায় ৩৫ বছর পর গ্রামীণ হাট বসেছে। এই হাটকে কেন্দ্র করে গ্রাম বাসীদের মধ্যে উদ্দীপনা তুঙ্গে। রায়গঞ্জ শহর থেকে প্রায় ৩ কিমি দূরে ১২ নম্বর বরুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের রাজবংশী অধ্যুষিত নোয়াপাড়া গ্রামে দেড় মাস আগে শুরু হয়েছে সাপ্তাহিক হাট। গ্রামের ৩০০ বছরের পুরোনো একটি বট গাছের নীচে মঙ্গলচণ্ডীর মন্দিরের পাশে গ্রাম বাসীদের উদ্যোগে শুরু হয়েছে এই হাট। প্রতি মঙ্গলবার বসে এই হাট।

লকডাউনে গ্রামের মানুষের কাজ না থাকায় হতাশা তৈরি হয়েছিল। আয় না থাকায় অনেকে ছুটেছিলেন ভিন রাজ্যে। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যের সহযোগিতায় গ্রামবাসীরা শুরু করেছেন এই হাট। সবজি, মাছ, মাংস, জামা-কাপড়ের পাশাপাশি হাটে বিক্রি হচ্ছে ধান ও চাল। গ্রামাঞ্চলের পাশাপাশি শহর থেকেও ছুটে আসছেন ক্রেতা ও বিক্রেতারা। বেচা-কেনা ভালই হচ্ছে দাবি সকলের।

- Advertisement -

স্থানীয় গ্রামবাসী স্বদেশ বর্মন জানান, আজ থেকে ৩৫ বছর আগে এখানে হাট বসত। এরপর দৈব কারণে এই হাট বন্ধ হয়ে যায়। লকডাউনে গ্রামের মানুষের আয় কমে যাওয়ায় এবং ভিন রাজ্য থেকে অনেকে ফিরে আসায় আবার হাট শুরু হয়েছে। হাট মালিক আনন্দ বর্মন জানান, গ্রামের মানুষের সহযোগিতায় এই হাট আবার শুরু হয়েছে। আপাতত কোনও ভাড়া নেওয়া হচ্ছে না। শহর ও গ্রামের ক্রেতা ও  বিক্রেতাদের হাটে আসার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছি। বেচা-কেনা ভালই হচ্ছে।

মাংস বিক্রেতা গোকুল বর্মন জানান, গ্রামে হাট  বসায় আমার মত অনেকের রোজগার হচ্ছে। সপ্তাহে দু’দিন হলে ভাল হয়। বরুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য মানিক বর্মন বলেন, গ্রামবাসীদের স্বার্থে এই হাট প্রায় ৩৫ বছর পর শুরু করা হয়েছে। অনেক মানুষ আসছে হাতে। আগামী দিনে হাটটির পরিকাঠামো আরও উন্নত করা হবে।