২৬ দিন বন্ধ থাকার পর চালু হল রানিগঞ্জের বল্লভপুর পেপার মিল

92

আসানসোল: ২৬ দিন বন্ধ থাকার পর বুধবার থেকে আবার চালু হল আসানসোলের রানিগঞ্জের বল্লভপুর(বেঙ্গল) পেপার মিল। গত ২০ মে কাঁচামালের অভাবে অর্ডার ঠিক মতো না থাকা ও আর্থিক সংকটের কারণে কর্তৃপক্ষ মিল বন্ধ রাখার কথা বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল। মিলের গেটে সাসপেনশন অফ ওয়ার্কের নোটিশও লাগানো হয়েছিল।

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে মিল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সিটু ও তৃণমূল কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠন অনুমোদিত আইএনটিটিইউসি ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের মিল খোলার বিষয়ে চুক্তি হয়। সেই চুক্তি অনুযায়ী মিল বন্ধ থাকা ২৬ দিনের বেতন কর্মীদের দেওয়ার বিষয়ে কর্তৃপক্ষ রাজি হয়েছে। লকডাউনে মিল বন্ধ থাকার সময় কর্মীদের বেতনের ক্ষেত্রে রাজ্য সরকার যে সিদ্ধান্ত নেবে মিল কর্তৃপক্ষ তা মেনে নেবে বলে জানানো হয়েছে। এছাড়াও মিল চালু হওয়ার পরে নতুন করে বেতন চুক্তি নিয়ে আলোচনা হবে বলে জানান সিটু নেতা হেমন্ত প্রভাকর ও আইএনটিটিইউসি নেতা অশোক হেলা। এদিকে মিল চালু হওয়ার খবরে মিলের কর্মীরা যখন খুশি হয়ে এদিন কাজে যোগ দিতে যান তখন সেখানে আইএনটিটিইউসির নেতা সুশান্ত মণ্ডল বিক্ষোভ দেখানো শুরু করেন। তিনি কর্মীদের মিলে ঢুকতে বাধা দেন। তিনি বলেন, ‘এটা অনৈতিক চুক্তি। হাতে কোনও টাকা দেওয়া হচ্ছে না। এই নিয়ে শেষ পর্যন্ত ধাক্কাধাক্কি হয়। তাকে কারখানার গেট থেকে দুই শ্রমিক সংগঠনের সদস্য কর্মীরা বার করে দিয়ে কাজে যোগ দেন।’

- Advertisement -

হেমন্ত প্রভাকর বলেন, ‘আমরা দুই ইউনিয়ন যৌথভাবে আন্দোলন করছিলাম মিল খোলার জন্য। বিষয়টি জেলার শ্রম কমিশনার দপ্তরের জানানো হয়েছিল। সকলের চাপেই ইউনিয়নের সঙ্গে মিল কর্তৃপক্ষ আলোচনা করে মিল খোলার সিদ্ধান্ত নেয়। সুশান্ত মণ্ডল এর আগে দশ বছর এই মিলে ইউনিয়নের নেতৃত্ব দিয়ে মিলের কর্মীদের স্বার্থকে ধ্বংস করেছেন। সুশান্তবাবু তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমি আসল তৃণমূল কংগ্রেসের ইউনিয়ন নেতা। আমাকে মিটিংয়ে ডাকা হয়নি। এই চুক্তি সেকারণে অবৈধ। মিল কর্তৃপক্ষের তরফে বলা হয়েছে একদিনের মধ্যে বকেয়া বেতন মিটিয়ে দেওয়া হবে।’