স্বাধীনতার পর ‘বড় প্রাপ্তি’ চিতিয়ারডাঙ্গা গ্রামের

118

চ্যাংরাবান্ধা: স্বাধীনতার পর প্রথম পাকা রাস্তা পেতে চলেছেন মেখলিগঞ্জ ব্লকের চ্যাংরাবান্ধা গ্রাম পঞ্চায়েতের ১৫৭ জামালদহ চিতিয়ারডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দারা। এই গ্রামে প্রবেশের একমাত্র মূল রাস্তাটি পাকা করার বিষয়ে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে রাস্তাটি পাকা করার জন্য অর্থ বরাদ্দ হয়ে টেন্ডার প্রক্রিয়াও সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে।

প্রশাসন সূত্রে খবর, আগামী ২৭ জানুয়ারি এই পাকা রাস্তার কাজ শুরু হবে। ওই দিন নবান্ন থেকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী একাধিক প্রকল্পের কাজের উদ্বোধন করবেন। সেই তালিকায় এই গ্রামের রাস্তাটিও রয়েছে। এই উদ্দেশ্যেই শুক্রবার সীমান্তের চিতিয়ারডাঙ্গা গ্রাম পরিদর্শন করেন জেলা এবং মেখলিগঞ্জ ব্লক প্রশাসনের একটি প্রতিনিধিদল। সেই দলে কোচবিহারের অতিরিক্ত জেলাশাসক (জেলা পরিষদ) শেখ আনসার আহমেদ, মেখলিগঞ্জের বিডিও সঙ্গে ইউডেন ভুটিয়া, চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পরেশ চন্দ্র অধিকারী প্রমুখ ছিলেন।

- Advertisement -

এদিন অতিরিক্ত জেলাশাসক জানান, এই গ্রামেও পাকা রাস্তার কাজ শুরু হবে। সেইসব দেখতেই এদিন এলাকায় আসা হয়েছে। অন্যদিকে, চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পরেশ চন্দ্র অধিকারী জানিয়েছেন, এই এলাকার মানুষের পাকা রাস্তার দাবি দীর্ঘদিনের। অবশেষে পাকা রাস্তার কাজ শুরু হচ্ছে। এই পাকা রাস্তার কাজ দ্রুত সম্পন্ন করার বিষয়েও প্রশাসনের তরফে চেষ্টা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, চ্যাংরাবান্ধা মাথাভাঙ্গা সড়কের পাশে কালীবাড়ি থেকে একটি রাস্তা চিতিয়ারডাঙ্গা গ্রামের দিকে গিয়েছে। আর কালীবাড়ি মোড় থেকে সুটুঙ্গা সেতু পেরিয়ে এই রাস্তাটিই দীর্ঘদিন ধরে পাকা করার দাবি তুলে আসছেন চিতিয়ারডাঙ্গা গ্রামের মানুষেরা।