ফালাকাটায় এক বছরেও তৈরি হয়নি ট্রাফিক আইল্যান্ড

378

সুভাষ বর্মন, ফালাকাটা :  ফালাকাটায় এশিয়ান হাইওয়েতে ট্রাফিক ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে পুলিশ প্রশাসন কোনো উদ্যোগ নিচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বছর রাস্তা সম্প্রসারণের জন্য ফালাকাটার মূল চৌপথিতে থাকা ট্রাফিক আইল্যান্ড ভেঙে ফেলা হয়। কিন্তু এখনও সেটি তৈরি না হওয়ায় ট্রাফিকের দায়িত্বে থাকা কিছু পুলিশকর্মীকে রোদ, বৃষ্টি উপেক্ষা করে চৌপথিতে দাঁড়িয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ডিউটি করতে হচ্ছে। সমস্যায় পড়ছেন যানচালকরাও। এদিকে, মিলরোড চৌপথিতে চার মাস আগে বিকল হওয়া ইলেকট্রিক ট্রাফিক সিগন্যাল এখনও ঠিক না হওয়ায় ফালাকাটায় ট্রাফিক আইন মানছেন না অনেকেই। ঢিলেঢালা ট্রাফিক ব্যবস্থা নিয়ে ক্ষোভ ছড়িয়েছে নানা মহলে। নাগরিকদের অভিযোগ, দিনদিন ফালাকাটার ট্রাফিক ব্যবস্থার অবনতি হচ্ছে। যদিও আলিপুরদুয়ারের ডিএসপি ট্রাফিক মহম্মদ বদিউজ্জামান বলেন, ফালাকাটার ট্রাফিক ব্যবস্থার সমস্ত দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

ফালাকাটার তিন জায়গায় ট্রাফিক সিগন্যালের পয়েন্ট রয়েছে। গত বছর বীরপাড়া থেকে ফালাকাটা পর্যন্ত এশিয়ান হাইওয়ে তৈরির পর ধূপগুড়ি মোড়, নতুন চৌপথি ও মিলরোড চৌপথিতে বসানো হয় ইলেকট্রিক ট্রাফিক সিগন্যাল। এর মধ্যে নতুন চৌপথি হল ফালাকাটার প্রাণকেন্দ্র। জয়গাঁ, মাদারিহাট, কোচবিহার, দিনহাটা, অসম, জোড়াই, আলিপুরদুয়ার, ধূপগুড়ি, জলপাইগুড়ি, শিলিগুড়ি সহ বহু দূরপাল্লার যানবাহন এই চৌপথি হয়ে যাতায়াত করে। নতুন চৌপথিতে আগে অনেক দুর্ঘটনাও ঘটেছে। গত বছর রাস্তা সম্প্রসারণের জেরে এই চৌপথির ট্রাফিক আইল্যান্ডটি ভেঙে ফেলা হয়। তারপর এক বছরেও নতুন করে ট্রাফিক আইল্যান্ড এখানে তৈরি হয়নি। তাই প্রায়ই চৌপথির মাঝখানে দাঁড়িয়ে ট্রাফিক ব্যবস্থা পরিচালনা করতে হয় ট্রাফিক পুলিশকে। সম্প্রতি সিগন্যালে টেকনিকাল সমস্যাও দেখা দিয়েছে। ফলে ব্যস্ততম রাস্তায় যানবাহন নিয়ন্ত্রণে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে ট্রাফিক পুলিশকে। এদিকে, মিলরোড চৌপথিতে ট্রাফিক আইনের কেউ পরোয়াই করছেন না। এখানকার ট্রাফিক সিগন্যাল দীর্ঘদিন বিকল। অভিযোগ, এই চৌপথিতে অধিকাংশ সময় ট্রাফিক পুলিশকেও থাকতে দেখা যায় না। এসবের পাশাপাশি ফালাকাটায় কোনো বাসস্ট্যান্ড না থাকায় প্রায় সময় মূল রাস্তাতেই যাত্রী ওঠানো-নামানো করে বিভিন্ন সরকারি, বেসরকারি বাস। নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও মূল রাস্তা ধরে চলাচল করে টোটো। সার্ভিস রোড ও ফুটপাথ বেদখল হওয়ায় পথচারীরা চলাচল করতে সমস্যায় পড়ছেন। শহরবাসীর অভিযোগ, এসব ক্ষেত্রে ফালাকাটার ট্রাফিক পুলিশ উদাসীন।

- Advertisement -

ফালাকাটা নাগরিক মঞ্চের প্রতিনিধি বাপন গোপ বলেন, গত বছর পুলিশ প্রশাসনের কড়া পদক্ষেপে কয়েক মাস ট্রাফিক ব্যবস্থা ভালো ছিল। কিন্তু এখন শহরের ট্রাফিক ব্যবস্থা ক্রমশ ভেঙে পড়ছে। স্থানীয় শিক্ষক ডঃ প্রবীর রায়চৌধুরি বলেন, ফুটপাথ, সার্ভিস রোড বেদখল হওয়ায় সমস্যা বাড়ছে। একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার তরফে নারায়ণ বিশ্বাস বলেন, ট্রাফিক পুলিশের ঢিলেঢালা নজরদারিতে পথচারীদের চলাফেরায় সমস্যা হচ্ছে। তাঁর অভিযোগ, পুলিশ ও প্রশাসনের গাফিলতির জন্যই আজও মূল চৌপথিতে ট্রাফিক আইল্যান্ড তৈরি ও মিলরোড চৌপথির ট্রাফিক সিগন্যাল ঠিক করা হয়নি। বাসচালক কালা সরকার বলেন, ট্রাফিক আইল্যান্ড না থাকায় অনেক সময় চৌপথিতে গাড়ি ঘোরাতে চালকদের সমস্যা হয়। ডিএসপি ট্রাফিক মহম্মদ বদিউজ্জামান বলেন, বিকল ট্রাফিক সিগন্যাল সারাইয়ে জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে জানানো হয়েছে। ট্রাফিক আইল্যান্ড প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ট্রাফিক আইল্যান্ড হবে কি না তা এখনও বলা যাচ্ছে না। কারণ এই রাস্তার কাজ এখন এশিয়ান হাইওয়ে ৪৮ কর্তৃপক্ষ দেখছে। পুরো রাস্তার কাজ শেষ হওয়ার পর ট্রাফিক আইল্যান্ড-এর বিষয়ে পদক্ষেপ করা হবে।