দশমাসেও মানগছ সেতু তৈরি হয়নি, ভেসে গিয়েছে সাঁকোও

317

সৌরভ রায়, ফাঁসিদেওয়া : ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ফাঁসিদেওয়া ব্লকের ফাঁসিদেওয়া এবং চটহাটের মাঝে পিছলা নদীর উপর থাকা মানগছ সেতু ভেঙে পড়েছিল। তারপর প্রায় দশমাস পেরিয়ে গেলেও সেই সেতু এখনও একই অবস্থায় পড়ে রয়েছে। সেতু ভেঙে য়াওয়ার পর তৎকালীন বিডিও একটি বাঁশের সাঁকো তৈরি করিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু লাগাতার ভারী বৃষ্টির জেরে জলের তোড়ে সেই সাঁকোও ভেসে গিয়েছে। ফলে এখন স্থানীয় গ্রামগুলির বাসিন্দারা ওই পথ দিয়ে যাতায়াত করতে সমস্যায় পড়ছেন। এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রতিশ্রুতি সত্ত্বেও প্রশাসন এখনও সেতু তৈরি করেনি।

২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে নয় টন ইট বোঝাই একটি ট্রাকের ভারে পিছলা নদীর সেতুটি ভেঙে পড়েছিল। প্রশাসনের তরফে একটি বাঁশের সাঁকো তৈরি করা হলেও কিছুদিন আগে সেটিও নদীর জলে ভেসে গিয়েছে। এর জেরে ওই এলাকার নিকরগছ, জাকিরগছ, গোয়ালগছ, মানগছ, নীচবাজার সহ একাধিক গ্রামের প্রায় হাজার দশেক মানুষ সমস্যার মুখে পড়েছেন। প্রশাসনের তরফে দ্রুত ওই সেতুটি দ্রুত তৈরি করার আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তা বাস্তবায়িত না হওয়ায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ। তাঁরা জানিয়েছেন, ফাঁসিদেওয়া থেকে চটহাট যাতায়াতের জন্যে তাঁরা এই পথ ব্যবহার করেন। সেতু বিপর্যয়ের কারণে তাঁদের অনেক সমস্যা হচ্ছে। এছাড়াও চাষিরা কৃষিপণ্য বাজারে নিয়ে যেতে সমস্যায় পড়ছেন। তাই তাঁরা দ্রুত সেতু তৈরির দাবি জানিয়েছেন।

- Advertisement -

ফাঁসিদেওয়া পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মহম্মদ বসির জানিয়েছেন, নতুন সেতুটি শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদ থেকে করা হবে। নতুন সেতু তৈরির প্রস্তাব পাঠানোর পর সেটি পাসও হয়ে গিয়েছে। বর্ষা পেরোলেই নতুন সেতু তৈরির কাজ শুরু করা হবে বলে তিনি আশ্বস্ত করেছেন। ফাঁসিদেওয়ার বিডিও সঞ্জু গুহমজুমদার জানিয়েছেন, বিষয়টি তাঁর নজরে রয়েছে। শীঘ্রই গ্রামবাসীর কথা মাথায় রেখে সেতুটি তৈরি করার ব্যবস্থা করা হবে।

এপ্রসঙ্গে শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের সভাধিপতি তাপস সরকার জানিয়েছেন, বর্ষার পরেই নতুন সেতু তৈরির কাজ শুরু করা হবে। তবে আপাতত এলাকাবাসীর কথা মাথায় রেখে একটি অস্থায়ী বাঁশের সাঁকো তৈরির জন্য তিনি ফাঁসিদেওয়া পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতিকে জানিয়েছেন।