তুফানগঞ্জ, ১ সেপ্টেম্বরঃ স্থানীয় ধানকলে শ্রমিক নিয়োগ নিয়ে রবিবার উত্তেজনা ছড়াল তুফানগঞ্জের বলরামপুর চৌপথি সংলগ্ন এলাকায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করতে বাধ্য  হয় পুলিশ। জানা গিয়েছে, মালিকের নির্দেশ অনুসারে ১২ জন শ্রমিক এদিন কাজে যোগ দিতে যান। কিন্তু সেখানে নতুন শ্রমিকদের কাজে না নেওয়ার দাবি তোলে মিলের শ্রমিক সংগঠন। বাধা দেওয়ায় দুই দলের মধ্যে বাদানুবাদ শুরু হয়। শেষে ধানকলের পুরানো শ্রমিকরা মিল থেকে বের হয়ে হঠাৎ ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে। সেই সময় তুফানগঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে প্রথমে শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি মিটিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে । কিন্তু শ্রমিকরা না মানায় লাঠিচার্জ করে অবরোধ তুলে দেয়। শ্রমিকরা ছত্রভঙ্গ হয়ে ছুটে আসে মিলে। মিলে এসে কর্মবিরতি শুরু করে তারা।
মিলের শ্রমিক নেতা আস্রাফ আলি বলেন, ‘বর্তমানে মিলের যা অবস্থা তা আমাদের পক্ষেই সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এরপরে নতুন করে শ্রমিক এলে আমরা আরও সমস্যায় পড়ব। তাই আমরা এদিন নতুন শ্রমিক নিতে বাধা দেই। শ্রমিকদের অভিযোগ এদিন পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনায় ৮ জন শ্রমিক আহত হয়েছে। আমিনুর রহমান নামে এক শ্রমিক তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। সেখানেই তার চিকিৎসা চলছে।
স্থানীয় বিজেপি নেতা রানা অধিকারী বলেন, ‘আমরা মালিকের সাথে কথা বলেই এদিন মিলে গিয়েছিলাম। তৃণমূল আশ্রিত শ্রমিকরা এদিন মিলে সমস্যা তৈরি করে। তারা কোন আলোচনাতেই বসতে চায়নি ।  মিলের বাইরে কি হয়েছে তা জানা নেই।
তুফানগঞ্জ এসডিপিও জ্যম ইয়াং জিম্বা জানান, কোনও লাঠিচার্জ হয়নি। শ্রমিকদের সাথে আলোচনা করেই অবরোধ তুলে দেওয়া হয় । এই ঘটনায় শ্রমিকরা হুরোহুরি করাতেই বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।