করোনা আক্রান্তের দেহ সৎকারের প্রস্তুতিকে ঘিরে উত্তেজনা হলদিবাড়িতে

770

হলদিবাড়ি: করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ সৎকারের প্রস্তুতিকে ঘিরে উত্তেজনা হলদিবাড়ি ব্লকের রাঙ্গাপানি মহাশ্মশান চত্বরে। ঘটনায় আহত হয়েছেন দুই পুরকর্মী। স্থানীয় গ্রামবাসীদের অভিযোগ, ঘনবসতিপূর্ণ এই এলাকার চুল্লিতে আক্রান্তের দেহ সৎকার করা হলে এলাকায় সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভবনা থাকে। সেকারণেই করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ সৎকারে বাধা দেওয়া হয়েছে। এদিকে ঘটনাস্থলে হলদিবাড়ি থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে শেষ পর্যন্ত পরিবারের সদস্যদের ইচ্ছা অনুযায়ী কোচবিহারের পিলখানা শ্মশানে দেহটির শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়।

পুরসভা সূত্রে খবর, সোমবার হলদিবাড়ি শহরের এক বৃদ্ধা কোচবিহারের একটি নার্সিংহোমে মারা যান। শহরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা ওই বৃদ্ধার দেহে করোনা সংক্রমণ ধরাও পড়ে। তাঁর মেয়ে ও জামাই কর্মসূত্রে কোচবিহারে থাকেন।

- Advertisement -

পুর প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত রোগীর সৎকার করা হবে হলদিবাড়ি রাঙ্গাপানি মহাশ্মশানে। সেই অনুযায়ী প্রস্তুতিও শুরু হয়ে যায়। এই খবর চাউর হতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন রাঙ্গাপানি এলাকার বাসিন্দারা। মৃতদেহ সৎকারের জন্য কাঠ বোঝাই একটি গাড়ি শ্মশানে যেতেই স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। অভিযোগ, তাঁদের লক্ষ্য করে ঢিল ছোড়া হয়। এতে জিতেন হরি ও দিলীপ বাসফর নামে দুই পুরকর্মী আহত হন। জিতেন হরির মাথায় আঘাত লাগে ও দিলীপ বাসফরের হাতে ও পায়ে চোট লাগে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছালে তাদের লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি ছোড়া হয় বলেও অভিযোগ।

পুলিশ সূত্রে খবর, ঘটনাস্থলে পৌঁছে গ্রামবাসীদের বুঝিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়। তারপরেও এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করে ইটবৃষ্টি ছোড়া হয়। বাইরে থেকে অতিরিক্ত পুলিশ এনে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। ঘটনার পর পুর সাফাই কর্মীরা হলদিবাড়ি পুর ভবনের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন।

পুরসভার প্রধান করণিক ইন্দ্রজিৎ সিংহ জানান, এই বিষয়ে হলদিবাড়ি থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। হলদিবাড়ি থানার আইসি দেবাশিস বসু বলেন, ‘মঙ্গলবার ঘটনাকে কেন্দ্র করে একাধিক মামলা রুজু করা হবে।’