নবজাতকের মৃত্যুতে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তুলে ব্যাপক উত্তেজনা

773

ফাঁসিদেওয়া, ২২ জানুয়ারিঃ নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনায় চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ উঠল। ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার ফাঁসিদেওয়া গ্রামীণ হাসপাতালে ব্যপক উত্তেজনা ছড়াল। এদিন রোগীর পরিবারের তরফে হাসপাতালে বিক্ষোভ দেখানো হয়। একইসঙ্গে এদিন হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসা না পেয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যুর ঘটনাতেও তুমুল চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এমনকি হাসপাতালের চিকিৎসকদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখানোর পাশাপাশি, ফাঁসিদেওয়া ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক অরুণাভ দাসকেও বিক্ষোভ দেখান উত্তেজিত জনতা। অরুণাভ  দাস বলেন, ‘বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।’

রোগীর পরিবার সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার রাতে প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে ফাঁসিদেওয়া দাস পাড়ার বাসিন্দা ২৮ বছর বয়সি শিউলি সাহা নামে এক গৃহবধূকে ফাঁসিদেওয়া গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তাঁকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হলে, রাবভিটা সংলগ্ন এলাকায় গৃহবধূ অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যেই মৃত পুত্র সন্তান প্রসব করেন। ওই গৃহবধূর শাশুড়ি নমিতা সাহার অভিযোগ, অর্ধেক দেহ বাইরে বেরিয়ে আসার পর তাঁর বউমাকে স্থানান্তরিত করা হয়। সে সময় হাসপাতালে চিকিৎসক ছিলেন না বলে দাবি করা হয়েছে। অপরদিকে, প্রসব যন্ত্রণা শুরু হওয়ার পর হাসপাতালে স্ট্রেচার ছাড়াই মহিলাকে পায়ে হাঁটিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন শিউলি সাহার মাসি রীনা দে।

- Advertisement -

অন্যদিকে, এদিন নারায়ণ রায় (৫৫) নামে জ্যোতিনগরের এক বাসিন্দাকে অসুস্থ অবস্থায় একই হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আনা হয়। চিকিৎসক আধঘণ্টা পর জরুরি বিভাগে আসেন বলে অভিযোগ। এদিকে, হাসপাতালেই ওই ব্যক্তি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে।