একাধিক দাবিতে তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত ঘেরাও করে বিক্ষোভ সিপিএমের

83

বর্ধমান, ১১ জানুয়ারিঃ নেই একশো দিনের কাজ। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সজলধারা প্রকল্পে পানীয় জল পরিষেবা। এমন অভিযোগ এনে সোমবার তৃণমূল পরিচালিত বর্ধমান ২ ব্লকের নবস্তা ১ পঞ্চায়েত অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাল সিপিএম কর্মী ও সমর্থকরা। তাঁরা প্রায় দেড় ঘণ্টা কালনা-বর্ধমান সড়ক অবরোধ করে রাখেন। পরে পঞ্চায়েত প্রধান সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিলে, অবরোধ তুলে নেন আন্দোলনকারীরা।

নবস্তা ১ পঞ্চায়েতে বিক্ষোভ ডেপুটেশনে এদিন নেতৃত্ব দিয়েছেন বর্ধমান ২ ব্লকের সিপিএম এরিয়া কমিটির সদস্যরা। বিক্ষোভ ডেপুটেশনে নবস্তা ১ পঞ্চায়েতের আউশা গ্রামের প্রায় চার শতাধিক জবকার্ডধারী শ্রমিক ও সাধারণ মানুষজনও অংশ নিয়েছিলেন। এলাকার সিপিএম নেতা কল্যাণ হাজরা, রকি আলম প্রমুখ বলেন, উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বছরের পর বছর ধরে আউশা গ্রামের চার শতাধিক জবকার্ডধারী শ্রমিককে ১০০ দিনের কাজ থেকে বঞ্চিত করে রাখা হয়েছে। ৪-ক আবেদনপত্র করে কাজের জন্য আবেদন করলেও, কাজ মিলছে না। শুধু তাই নয়, আউশা গ্রামে সজলধারা প্রকল্পে পানীয় জল পরিষেবা মিলছে না।

- Advertisement -

বিক্ষোভ ডেপুটেশনে অংশ নেওয়া অপর সিপিএম নেতা উত্তম কোনার বলেন, ২০০৮ সালে আউশা গ্রামে সজলধারা প্রকল্পে পানীয় জল পরিষেবা চালু করা হয়েছিল। চার বছর হয়ে গেলেও, সজলধারা প্রকল্পে পানীয় জল পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সে কারণে পানীয় জলের সমস্যায় ভুগছেন আউশা গ্রামের বাসিন্দারা। এছাড়াও, সরকারি আবাস যোজনার ঘর বিলিতেও পঞ্চায়েত কোনও নিয়ম নীতি মানছে না বলে সিপিএম নেতৃত্বের অভিযোগ। অবিলম্বে, এইসব দাবি পূরণের জন্য সিপিএম নেতৃত্ব পঞ্চায়েতে ডেপুটেশন জমা দেন।

সিপিএম নেতা কল্যাণ হাজরা বলেন,
পঞ্চায়েত প্রধান সারদা হাজরা আশ্বাস দিয়েছেন জবকার্ডধারী শ্রমিকরা আগামী ১৫ দিনের মধ্যে যাতে ১০০ দিনের কাজ পায়, সেই বিষয়টি তিনি দেখবেন। সজলধারা প্রকল্পে পানীয় জল পরিষেবা ফের চালুর ব্যাপারে প্রশাসনের উচ্চ পদস্থ কর্তাদের সঙ্গে কথা বলবেন বলেও আশ্বস্ত করা হয়েছে। পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ কথা মতো কাজ না করলে, তিনি বৃহত্তর আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।