বেহাল রাস্তা নিয়ে বাড়ছে ক্ষোভ, সরব হয়েছেন গ্রামবাসী

261

চোপড়া, ১৬ জানুয়ারিঃ চোপড়া ব্লকের হাপতিয়াগছ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় একাধিক রাস্তার সমস্যা নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভ শুরু হয়েছে। শনিবার এলাকার পৃথক দুই জায়গায় রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন স্থানীয়রা। এদিন বিন্নাবাড়ি এলাকায় প্রতিবাদে সরব হয়েছিলেন গ্রামবাসী। তাঁরা কিছুক্ষণ রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।আন্দোলনকারীরা এলাকার রাস্তার কাজ দ্রুত সম্পন্ন করার দাবি তোলেন।

অন্যদিকে, এদিন হাপতিয়াগছ ক্যানাল ব্রিজ এলাকাতেও স্থানীয়দের একাংশ বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। সেখানে স্থানীয়দের একাংশ বালির গাড়ি যাতায়াতের ফলে, রাস্তা বেহাল হওয়ার অভিযোগে সরব হয়েছিলেন। স্থানীয় হাপতিয়াগছ গ্রাম পঞ্চায়েত সূত্রে জানা গিয়েছে, এলাকার একাধিক রাস্তার সমস্যা রয়েছে। এদিকে এলাকায় যোগাযোগের রাস্তার কাজ নিয়ে এলাকায় শাসকদলের স্থানীয় নেতাদের একাংশের তোলাবাজির চাপে বারবার কাজের বরাত পাওয়া ঠিকাদার সংস্থা পালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। যদিও স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব এধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

- Advertisement -

হাপতিয়াগছ সীমান্ত থেকে সোনাপুর অয়েল ইন্ডিয়া মোড় পর্যন্ত প্রায় ১০ কিলোমিটার রাস্তার কাজ শুরু হয় গত বছরের ফেব্রুযারি মাসে। কিন্তু, আপাতত কাজ থমকে রয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এরআগে একবার ঠিকাদার পালিয়ে যাওয়ার পর গত বছর কাজ শুরু হয়েছিল। তবে, ফের সম্পূর্ণ কাজ সম্পন্ন হওয়ার আগেই, গত প্রায় তিন মাস ধরে কাজ বন্ধ রয়েছে। রাস্তায় শুধু পাথর ফেলার পর, কাজ ছেড়ে দেওয়াতে সমস্যা দেখা দিয়েছে। অভিযোগ, কাজ আটকে যাওয়ার কারনে, পথ চলতে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে স্থানীয়দের সাধারন মানুষকেই। মূলত এই রাস্তার সমস্যা নিয়ে এদিন বিন্নাবাড়িতে অবরোধ আন্দোলন শুরু হয়।

স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা চোপড়া পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ তাহের আহমেদ অবশ্য বলেন, অভিযোগ সঠিক নয়। সোনাপুর অয়েল ইন্ডিয়া মোড় থেকে হাপতিয়াগছ সীমান্ত পর্যন্ত পিডাব্লিউডি-র এই রাস্তার কাজের জন্য যে ঠিকাদার বরাত পেয়েছেন, সে পালিয়ে যাওয়ার জন্য নতুন ভাবে টেন্ডার করে, গত বছর ফের কাজ শুরু হয়। বর্তমানে কোনও সমস্যা নেই। কাজও এগিয়েছে, তবে পাথরের যোগান না থাকায়, সম্প্রতি কাজ আটকে পড়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কাজ চালু হবে বলে জানা গিয়েছে।

চোপড়ার বিডিও জুনেইদ আহমেদ বলেন, বিক্ষোভ অবরোধের কথা শুনেছি। এব্যাপারে স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে। চোপড়া থানার আইসি বিনোদ গজমের বলেন, এদিন হাপতিয়াগছে বিক্ষোভ আন্দোলন সংক্রান্ত অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।