আমার নামে এফআইআর করে যদি রাজ্যে নারী নির্যাতন বন্ধ হয়, তাহলে আরও এফআইআর করুন: অগ্নিমিত্রা

329

বর্ধমান: মাননীয়ার রাজত্বে একের পর এক ধর্ষণের ঘটনা ঘটে চলেছে। অভিযুক্তরা শাসক দলের লোক হওয়ায় তাদের কিছুই হচ্ছে না। আমার নামে এফআইআর করে যদি রাজ্যে নারী নিগ্রহের ঘটনা বন্ধ হয়, তা হলে আরও এফআইআর করুন। বর্ধমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বুদবুদের নির্যাতিতাকে দেখতে এসে শনিবার এভাবেই রাজ্য সরকারকে বিঁধলেন বিজেপির মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পল। তৃণমূল নেতৃত্ব অবশ্য অগ্নিমিত্রার বক্তব্যকে কোনও গুরুত্ব দিতে চান নি। উলটে তারা যোগী রাজ্যে গিয়ে অগ্নিমিত্রাকে এই কথা শুনিয়ে আসার কথা বলেছেন।

২৬ নভেম্বর বুদবুদের মৌগ্রামে এক তপশিলি বালিকা ধর্ষিতা হয়। বিজেপির তরফে অভিযোগ করা হয়, ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত তৃণমূল পদাধিকারীর ছেলে। শুক্রবার বিজেপি যুব মোর্চার নেতৃত্ব নির্যাতিতায় গ্রামে যায়। নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগ করেন, কিছু জিনিস কেনার জন্য তাঁদের মেয়ে দোকানে যাচ্ছিল। সে সময় মুখ টিপে ধরে তাকে জোর করে ঝোঁপে টেনে নিয়ে গিয়ে অভিযুক্ত মনোহর ঘোষ নির্যাতন চালায়। বিজেপির অভিযোগ, অভিযুক্ত মনোহর ঘোষ বুদবুদের একটি পঞ্চায়েতের তৃণমূল পদাধিকারীর ছেলে। শারীরিক অবস্থা খারাপ থাকায় নির্যাতিতাকে মানকর গ্রামীণ হাসপাতাল থেকে বর্ধমান হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। গতকাল বর্ধমান হাসপাতালে এসে অগ্নিমিত্রা পল নির্যাতিতার সঙ্গে কথা বলেন।

- Advertisement -

নির্যাতিতার সঙ্গে দেখা করে বাইরে বেরিয়ে বিজেপি নেত্রী অগ্নিমিত্রা পল অভিযোগ করেন, নির্যাতিতাকে একটি ১২ ইঞ্চির জায়গায় রাখা হয়েছে। তার উপরের বেডে রয়েছে প্রসূতি। এই প্রসঙ্গে সামনে এনে অগ্নিমিত্রা বলেন, এরপরেও মাননীয়া দাবি করেন রাজ্যে স্বাস্থ্য পরিষেবার নাকি ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। একই সঙ্গে তিনি অভিযোগ করেন, রাজ্যে জলপাইগুড়ি সহ বিভিন্ন জায়গায় একাধিক ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষণের ঘটনার ক্ষেত্রে অভিযুক্ত যদি তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী বা সমর্থক তাহলে পুলিশ নীরব দর্শক হয়ে থাকছে। কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।

শুভেন্দু অধিকারীর মন্ত্রিত্ব ছাড়া নিয়ে অগ্নিমিত্রা বলেন, কোনও গুণী দায়িত্ববান মানুষ ওদের সঙ্গে থাকতে পারছেন না। মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী ভাইপোকে ছাড়া অন্য কাউকে মান্যতা দেন না। তাই কোনও যোগ্য মানুষই ওই দলে থাকতে পারবেন না। তৃণমূলে রাজ্যের মুখপাত্র তথা পূর্ব বর্ধমান জেলাপরিষদের সহ-সভাধীপতি দেবু টুডু বলেন, মনে হয় যোগী রাজ্যে হওয়া ধর্ষণ ও নির্যাতিতার দেহ জ্বালিয়ে দেওয়ার ঘটনা ধামাচাপা দেবার ঠিকা নিয়েছেন অগ্নিমিত্রা পল। ওনাকে বলব যোগী রাজ্যে গিয়ে যোগীজিকে নারী নির্যাতন বন্ধের ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়ে আসতে।