শুভেন্দু অধিকারীকে দূরে সরিয়ে ভাইপোকে মুখ্যমন্ত্রী করার ইচ্ছা মমতার, তোপ অগ্নিমিত্রার

929

আসানসোল: ছটপুজো উপলক্ষ্যে রাজ্য বিজেপির মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পল বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভার আমরাসোঁতা গ্রাম পঞ্চায়েতের ঝাটিডাঙ্গা গ্রাম আসেন। বৃহস্পতিবার তিনি ওই এলাকার প্রায় ১০০ জনের হাতে নতুন বস্ত্র তুলে দেন। পরে তিনি তাঁর বক্তব্যে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, আমাদের দলের কেন্দ্রীয় স্তরের পর্যবেক্ষকরা রাজ্যে অশান্তি ছড়াতে এসেছে বলে দাবি করছে রাজ্যের শাসক দল। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা কি বহিরাগত? তাহলে রোহিঙ্গার মতো অনুপ্রবেশকারী যারা তারা কি আপনার কাছের লোক?

এর পালটা পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি জিতেন্দ্র তিওয়ারি বলেন, তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ-নেতারা বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশের হাথরসে দলিত মহিলার ওপর নির্যাতনের ঘটনা খতিয়ে দেখতে গিয়েছিলেন। সেখানে তাঁদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি। তাঁরা কি বহিরাগত ছিলেন? বাংলায় তো এইরকম কোনও ঘটনা ঘটছে না। আসানসোলে দিল্লি-মুম্বই থেকে নেতা আসছেন। তাঁরা হেডমাস্টার হিসেবে আসছেন ও দেখছেন যে বিজেপি নেতারা পড়া করেছে কিনা। তাঁর দাবি, তিনি খবর পেয়েছেন বাংলার বিজেপি নেতাদের নাকি কান ধরে উঠবস করানো হচ্ছে। যা একবারেই ঠিক নয় বলে মনে করেন জিতেন্দ্র তেওয়ারি।

- Advertisement -

এদিন অগ্নিমিত্রা পাল সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় নিজের ঢাক নিজেই পেটান। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, নজরুল ইসলাম ও স্বামী বিবেকানন্দের মতো মনীষীদের পাশে নিজের ছবি দিয়ে বলছেন বাংলার গর্ব মমতা। আর মেলা ও খেলায় কোটি কোটি টাকা ওড়াচ্ছেন। অথচ এসএসসি শিক্ষকদের বকেয়া টাকা দিতে পারছেন না। তারপর কিভাবে বলেন তিনি বাংলার গর্ব? মমতাকে বাংলা লজ্জা বলে দাবি করেন রাজ্য বিজেপি মহিলা মোর্চার সভানেত্রী।

তিনি আরও বলেন, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী শুধু নিজের পরিবারের কথা ভাবছেন। কেন্দ্র সরকারের প্রকল্পগুলিকে বাংলায় কার্যকর করতে দিচ্ছেন না। শুভেন্দু অধিকারী প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শুভেন্দুদার বিজেপিতে চলে আসা উচিত। তৃণমূল কংগ্রেস তাকে সাইডলাইনে রেখেছে। এত বড়মাপের জননেতাকে দূরে রেখে শুধুমাত্র নিজের ভাইপোকে মুখ্যমন্ত্রী করার পরিকল্পনা করছেন মমতা, তা একবারেই ঠিক নয়। শুভেন্দুদা বিজেপিতে আসতে চাইলে আসুন। আমাদের দরজা সবার জন্য খোলা। তিনি এলে দুহাত ভরে অভ্যর্থনা জানাব।

এর পালটা জিতেন্দ্র তেওয়ারি কটাক্ষের সুরে বলেন, বাংলায় বিজেপির নেতা নেই। তাই তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাদের দলে টানার চেষ্টা করছেন। তারা প্রকাশ্যে স্বীকার করুন যে, তাদের দলের কোনও নেতা নেই। মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার মতো কোনও মুখ নেই। তাই তারা তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাদের দলে টানার চেষ্টা করছেন। প্রসঙ্গত, বুধবার ও বৃহস্পতিবার অগ্নিমিত্রা পাল আসানসোল ও দুর্গাপুরে একাধিক কর্মসূচিতে যোগ দেন। আসানসোলের মতো দুর্গাপুরেও রাজ্যের শাসক দল তৃনমুল কংগ্রেস ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন বিজেপি নেত্রী।