আলু বীজের দোকানে কৃষি আধিকারিকদের হানা

1003

ফুলবাড়ি: বৃহস্পতিবার মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের ফুলবাড়ির ক্ষেতি বাজারে এক আলু ব্যবসায়ীর দোকানে হানা দেন কৃষি দপ্তরের আধিকারিকরা। মাথাভাঙ্গা-২ ব্লক কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, সরকার অনুমোদিত লাইসেন্স ছাড়াই ক্ষেতি বাজারের আলু ব্যবসায়ী রতন বর্মন আলু বীজ বিক্রি করছিলেন। অভিযোগ পেয়ে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা নাগাদ ওই ব্যবসায়ীর দোকানে হানা দেন কোচবিহার জেলার সহ কৃষি অধিকর্তা (প্রশিক্ষণ) প্রিয়নাথ দাস এবং মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের সহ কৃষি অধিকর্তা ড: মলয়কুমার মণ্ডল।

ব্লক সহ কৃষি অধিকর্তা ড: মলয়কুমার মণ্ডল জানান, যে কোনও বীজ বিক্রির জন্য সরকার অনুমোদিত লাইসেন্সের দরকার হয়। কিন্তু ওই আলু ব্যবসায়ী সরকারি লাইসেন্স ছাড়া শুধু গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে একটি ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরে এলাকার চাষিদের কাছে আলু বীজ বিক্রি করছিলেন।

- Advertisement -

মলয়বাবু জানান, ওই ব্যবসায়ী চাষিদের কাছে এখনও পর্যন্ত ১ লক্ষ ১০ হাজার কেজি আলু বীজ বিক্রি করেছেন। তাঁর কাছে জানতে চাওয়া হয়, তিনি কোথা থেকে আলু বীজ সংগ্রহ করেছেন। কিন্তু তিনি তার কোনও কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। তাই এদিন ওই ব্যবসায়ীকে একটি নোটিশ ধরানো হয়। সেইসঙ্গে আগামী ১০ দিনের মধ্যে ব্যবসায়ীর কাছে নোটিশের উত্তর চাওয়া হয়েছে।

আলু ব্যবসায়ী রতন বর্মন বলেন, ‘আমি গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে আলু বীজের ব্যবসা করছিলাম। আলু বীজ বিক্রি করতে যে সরকার অনুমোদিত লাইসেন্স প্রয়োজন, সেটা জানা ছিল না। এখন সেই লাইসেন্স বানিয়ে নেব।’ তিনি বলেন, ‘পাঞ্জাবের একটি ফার্ম থেকে আলু বীজ সংগ্রহ করা হয়েছিল। কৃষি আধিকারিকদের তার কাগজ দেখানো হয়েছে।’