দুর্গা প্রতিমার খরচ দিচ্ছেন আহমেদ

489

গয়েরকাটা: করোনা আবহে যখন বাংলার বিভিন্ন প্রান্তে দুর্গা পুজো হচ্ছেনা বা কোথাও অনেকাংশেই কমেছে আড়ম্বর। সেখানে এবছরই প্রথম দুর্গা পুজোর আয়োজন করে নজির তৈরি করলেন গয়েরকাটার হাড়ভাঙ্গা স্পোর্টিং ক্লাবের সদস্যরা।

এই নতুন পুজোর দেবী প্রতিমার খরচ দেওয়ার ভার নিয়েছেন জাহিরুদ্দিন আহমেদ নামে স্থানীয় এক মুসলিম ব্যবসায়ী। পাশাপাশি, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যখন মাঝে মধ্যেই বিদ্বেষের খবর পাওয়া যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে দেবী পুজোয় অন্য ধর্মাবলম্বী মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহন সম্প্রতি মজবুত করতে অগ্রণী ভূমিকা গ্রহন করবে বলে শুভবুদ্ধিসম্পন্ন অনেক মানুষই মনে করছেন।

- Advertisement -

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরে গয়েরকাটার একমাত্র বাসন্তী পুজোর আয়োজন করে আসছিলেন এলাকার হাড়ভাঙা স্পোর্টিং ক্লাবের সদস্যরা। এবার করোনার জেরে বাতিল করতে হয় সেই পুজো। পুজোর জন্য ওঠানো চাঁদা দিয়ে গরীবদের অন্ন ও বস্ত্র দান করেন কমিটির সদস্যরা।

পুজো কমিটির অন্যতম সদস্য সমর সরকার বলেন, ‘এবার করোনার জেরে বাসন্তী পুজো আমরা করতে পারিনি। তাই ভাল লাগছিল না, একপ্রকার জেদ করেই তাই দুর্গা পুজো করার সিধান্ত নেই। তবে আমরা এলাকাবাসীর থেকে কোন চাঁদা তুলছিনা।

মুসলিম ধর্মাবলম্বী এক দাদা আমাদের পুজোর প্রতি এগিয়ে এসে আমাদের মনোবল আরও বাড়িয়ে তুলেছে। তাই আশা করি ভালভাবে পুজোর আয়োজন করতে পারব। এলাকার কাঠ ব্যবসায়ী জাহিরুদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘হাড়ভাঙ্গা স্পোর্টিং ক্লাবের সদস্যরা প্রত্যেকেই আমার বন্ধু ও ভাই সম। ওরা প্রথম বার পুজোর আয়োজন করছে। তাই আমিও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছি’। ধর্ম যাই হোক আমরা সবাই তো মানুষ, তাই একে অপরের উৎসবে শামিল হওয়াই ভাল।