দক্ষিণ দিনাজপুরে তৃণমূলের ঘুম উড়িয়েছে মিম

809
তৃণমূল সংখ্যালঘু সেলের উদ্যোগে কর্মীসভা

রাজু হালদার, গঙ্গারামপুর : রাজ্যে পা না রেখেই একুশের নির্বাচনের আগে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের অন্দরমহলে শীতের ঠান্ডা রেশ ছড়িয়ে দিয়েছেন মজলিস ই ইত্তেহাদুল মুসলিমিন প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। হায়দরাবাদ থেকে তিনি ঘোষণা করেছেন, এবারের নির্বাচনে তাঁর দল পশ্চিমবঙ্গেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চলেছে। এতেই ঘুম উড়েছে শাসক ও বিরোধী শিবিরের। এরাজ্যে মিমের প্রবেশ ঘটলে ভোট ভাগাভাগি যে নিশ্চিত, তা বুঝতে দেরি হয়নি কারোর। তাই সময় থাকতেই বিভিন্ন রাজনৈতিক দল মিমের বিরোধিতায় নেমে পড়েছে। এক্ষেত্রে অন্যদের অনেকটাই যেন পিছনে ফেলে দিয়েছে শাসকদল।

একুশের নির্বাচনে গঙ্গারামপুর বিধানসভা কেন্দ্রে সংখ্যালঘু ভোট নিশ্চিত করতে গঙ্গারামপুর ব্লক ও টাউন তৃণমূল সংখ্যালঘু সেলের উদ্যোগে স্থানীয় রবীন্দ্র ভবনে শনিবার এক কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন জেলা তৃণমূল সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি মোজাম্মেল হক, কার্যকরী সভাপতি তাজিমুল হক, জেলা তৃণমূল সমণ্বয়ক সুভাষ চাকি, ললিতা টিগ্গা, ব্লক তৃণমূল সভাপতি মৃণাল সরকার, শহর তৃণমূল সভাপতি অশোক বর্ধন সহ আরও অনেকে। সম্প্রতি বিহার নির্বাচনে আশাতীত ভালো ফল করেছে মিম। একইসঙ্গে বিজেপি বিরোধী সংখ্যালঘু ভোট ব্যাংকে থাবা বসিয়ে কার্যত গেরুয়া শিবিরের জয়ের পথকে অনেকটা মসৃণ করে দিয়েছে ওয়াইসির দল। এরপরেই আসাদুদ্দিন ওয়াইসি হায়দরাবাদ থেকে ঘোষণা করেন, এবার তাঁর লক্ষ্য পশ্চিমবঙ্গ। এই রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলায় প্রার্থী দেওয়ার ঘোষণা করেন তিনি। তাতেই ঘুম উড়েছে রাজ্যের শাসক শিবিরের। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে সংখ্যালঘু ভোটের বিভাজন রুখতে ইতিমধ্যে রাজ্যজুড়ে একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে তৃণমূল। তারই রেশ ধরে এদিন গঙ্গারামপুর ব্লক ও শহর তৃণমূলের সংখ্যালঘু সেলের উদ্যোগে কর্মীসভার আয়োজন করা হয়। একইসঙ্গে এদিন তৃণমূল সংখ্যালঘু সেলের পূর্ণাঙ্গ জেলা কমিটিও ঘোষণা করা হয়। সভায় বক্তাদের প্রত্যেকেই মিম নিয়ে বক্তব্য রাখেন। একুশের ভোটে মিমের সংশ্রবে না আসার জন্য মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের কাছে আবেদন জানানো হয়।

- Advertisement -

তৃণমূল সংখ্যালঘু সেলের জেলা সভাপতি মোজাম্মেল হক বলেন,  আগামী বিধানসভা নির্বাচনের আগে গঙ্গারামপুর বিধানসভা কেন্দ্রে দলের সংখ্যালঘু সেলকে আরও বেশি শক্তিশালী করতে এই সভার আয়োজন করা হয়েছে। এদিন তৃণমূল সংখ্যালঘু সেলের পূর্ণাঙ্গ জেলা কমিটিও ঘোষণা করা হয়েছে। এবার বিহার নির্বাচনে মিম,  অবিজেপি দলগুলির ভোট কেটে বিজেপির পথ অনেকটা মসৃণ করে দিয়েছে। বিহার নির্বাচনের মতো পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে যাতে মিম কোনও ফায়দা লুটতে না পারে, তার জন্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষজনদের নিয়ে এই বিশেষ কর্মীসভার আয়োজন করা হয়েছে।

জেলা তৃণমূল সংখ্যালঘু সেলের কার্যকরী সভাপতি তাজিমুল হক জানান, আগামী বিধানসভা ভোটে পশ্চিমবঙ্গে মিম কোনওভাবে যাতে ধর্মীয় উস্কানি দিয়ে তৃণমূলের কোনও ক্ষতি করতে না পারে, তার জন্য তৃণমূল নেতৃত্ব সচেতন রয়েছে। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ে মানুষজন যাতে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে মিমের প্রলোভনে পা না দেন, তার জন্যই এদিনের এই কর্মীসভার আয়োজন। গঙ্গারামপুর ব্লক তৃণমূল সভাপতি মৃণাল সরকার জানান, বিহার নির্বাচনের পর আসাদুদ্দিন ওয়াইসি পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির সুবিধে করতে সংখ্যালঘু ভোট ব্যাংকে ফাটল ধরানোর চেষ্টা করতে পারেন। তাদের সেই চেষ্টাকে ব্যর্থ করতে আগেভাগেই তৃণমূল নেতৃত্ব মিমের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষকে সচেতন করতে শুরু করেছে। সেই রেশ ধরেই এদিন গঙ্গারামপুর ব্লক ও শহর এলাকার  সংখ্যালঘু মানুষজনদের নিয়ে কর্মীসভার আয়োজন করা হয়েছিল।