ইস্তফা দিলেন রাঙ্গালিবাজনা গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান

214

রাঙ্গালিবাজনা: ইস্তফা দিলেন আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাটের রাঙ্গালিবাজনা গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলের প্রধান রীণা শৈব কার্জি। মঙ্গলবার তিনি পদ থেকে ইস্তফা দেন। তিনি জানান, প্রধান পদ সামলালেও তিনি পেশায় একজন স্বাস্থ্যকর্মী। স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে যে কোনও একটি পদ বেছে নেওয়ার জন্য তাঁকে একাধিকবার নোটিশ দেওয়া হয়। ১০ ফেব্রুয়ারি ফের নোটিশ পেয়ে তিনি মঙ্গলবার প্রধানের পদ থেকে দেওয়া ইস্তফাপত্র মাদারিহাটের বিডিও শ্যারণ তামাংয়ের কাছে জমা দেন।

দক্ষিণ শিশুবাড়ি উপস্বাস্থ্যকেন্দ্র সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তর শিশুবাড়ি, দক্ষিণ শিশুবাড়ি, দক্ষিণ রাঙ্গালিবাজনা, মোক্তারপুর, দৌলতপুর, নবীপুর সহ বিরাট এলাকার কমবেশি সাত হাজার মানুষের পরিষেবা দেওয়া হয় ওই কেন্দ্র থেকে। স্বাস্থ্য পরিষেবার জন্য বিভিন্ন মৌজায় রয়েছেন আশাকর্মীরা। দক্ষিণ রাঙ্গালিবাজনার আশাকর্মী রীণা শৈব কার্জি রাঙ্গালিবাজনা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান পদে ছিলেন।

- Advertisement -

এলাকার বাসিন্দা লুৎফর রহমান বলেন, ‘প্রায় আড়াই বছর ধরে ভীষণ সমস্যায় ভুগছিলেন এলাকার বাসিন্দারা। সবচেয়ে সমস্যা হচ্ছিল অন্তঃসত্ত্বাদের। কারণ রীণাদেবী প্রধান পদ সামলাতে ব্যস্ত থাকায় স্বাস্থ্য পরিষেবা দিতে পারছিলেন না।’

গ্রাম পঞ্চায়েতের সদ্য প্রাক্তন প্রধান রীণা শৈব কার্জি অবশ্য বলেন, ‘আড়াই বছর ধরে আমি আশাকর্মী হিসেবে প্রাপ্য বেতন নিইনি। তবে এলাকায় স্বাস্থ্য পরিষেবা দেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করেছি। কিন্তু স্বাস্থ্য দপ্তর জানিয়েছে, দু’টি পদের একটি বেছে নিতে হবে। আমি চাকুরিই বেছে নিলাম।’

প্রসঙ্গত, রাঙ্গালিবাজনা গ্রাম পঞ্চায়েতের ১৭টি আসনের মধ্যে ১৩টিতে রয়েছেন তৃণমূলের পঞ্চায়েতরা। প্রধানের পদটি তপশিলি উপজাতির মহিলার জন্য সংরক্ষিত রয়েছে।’

তৃণমূলের রাঙ্গালিবাজনা অঞ্চল কমিটির সভাপতি আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘নয়া প্রধান মনোনয়নের প্রক্রিয়া শীঘ্রই শুরু হবে।’ বিডিও শ্যারণ তামাং ফোন রিসিভ না করায় তাঁর মন্তব্য জানা যায়নি।