পণপ্রথা বন্ধের দাবিতে সরব অখিল ভারতীয় রাজবংশী সমাজ

93

রায়গঞ্জ: রাজবংশী সমাজের মানুষের মধ্যে পণপ্রথা বন্ধ করতে উদ্যোগী হল অখিল ভারতীয় রাজবংশী সমাজ। রবিবার রায়গঞ্জের মেহেন্দি গ্রামে অনুষ্ঠিত সভায় পণপ্রথা বিলোপের দাবির পাশাপাশি রাজবংশী ভাষার স্বীকৃতির দাবিতে সরব হন নেতৃত্ব।

সংগঠনের সহ প্রচারক দ্বারিক নাথ বর্মন জানান, সরকার আমাদের যে সমস্ত সুবিধা দেওয়ার ব্যাপারে অঙ্গীকার বদ্ধ ছিল। সরকার সেই সমস্ত অঙ্গীকার পালন করেনি, আমরা দারিদ্রসীমার নীচে পড়ে আছি। আমরা সমাজের কাছে আজও অবহেলিত। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল মিটিং মিছিলে আমাদের নিয়ে ভিড় বাড়ায় শুধু। তাই আমাদের দাবি, সংবিধানের অষ্টম তপশিলে রাজবংশী জনজাতিকে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

- Advertisement -

তিনি বলেন, ‘সংবিধানে আছে যে উপজাতির সংখ্যা যেখানে বেশি থাকবে সেই উপজাতিকে শিক্ষিত করে তুলতে সেই ভাষাকে স্বীকৃতি দিতে হবে। কিন্তু স্বাধীনতার ৭৩ বছর পরেও আমাদের ভাষাকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি। অথচ অল চিকি ভাষাকে স্বীকৃতি দিয়ে স্কুল, কলেজ নির্মাণ করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের আন্দোলন চলছে পণপ্রথার বিরুদ্ধে। পণপ্রথার কারণে রাজবংশী সমাজ শেষ হয়ে যাচ্ছে। পাত্রীপক্ষ পণ দিতে গিয়ে শেষ পর্যন্ত ভিটেমাটি বিক্রি করে দিচ্ছেন। আমরা চাই সরকার এজন্য কঠোর আইন প্রয়োগ করুক।’

পাশাপাশি, রাজবংশী জমি বিক্রির ক্ষেত্রে আদিবাসীদের মতো কড়া আইন প্রয়োগের দাবি জানিয়েছেন তিনি। সংগঠনের সভাপতি সুধীর রায়, প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক পরিমল বর্মন রাজবংশী সমাজের উন্নয়নে সরকারের এগিয়ে আসার পাশাপাশি নিজেদের মধ্যে আরও বেশি ঐক্যবদ্ধ হওয়ার ডাক দেন। এদিন রায়গঞ্জ ব্লকের বিভিন্ন গ্রাম থেকে কয়েকশ রাজবংশী মানুষ অংশ নেন। বিভিন্ন বিষয়ে তাদের সচেতন করা হয়।