এবিভিপির পোস্টার ঘিরে উত্তেজনা, থানায় অভিযোগ দায়ের

194

কালিয়াগঞ্জ, ১১ এপ্রিলঃ ভোটের মাত্র ১০ দিন বাকি। তার আগে এবিভিপির লাগানো পোস্টার ঘিরে উত্তেজনা ছড়াল। কালিয়াগঞ্জ শহরের ৩ নম্বর মজলিশপুর এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে স্থানীয় পুলিশ ও ব্লক প্রশাসন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। শনিবার রাতে ভোট প্রচারের দেওয়াল লিখনের উপর এবিভিপির পোস্টার লাগানোকে ঘিরে স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন ওই এলাকার বাসিন্দা তথা শেরগ্রাম স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র পার্থ রায় (১৬)। এই বিষয়ে কালিয়াগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা শ্যামল রায়। পরবর্তীতে আশঙ্কাজনক অবস্থায় পার্থ রায়কে কালিয়াগঞ্জ স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শ্যামল বাবুর অভিযোগ, শনিবার মজলিশপুর এলাকায় দূর্গা মণ্ডপের সামনে এক অরাজনৈতিক পোস্টার লাগাতে গেলে, ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা কপিল দেব বর্মন, গৌতম সরকার, অভিজিৎ বোস, পঞ্চানন বোস, শচীন রায় এবং শহরের শান্তি কলোনির বাসিন্দা সুদীপ রঞ্জন চন্দের সাথে ঝামেলা বাধে। কিছুক্ষণ পর ঝামেলা মিটে গেলে পার্থ রায় বাড়ির অভিমুখে রওনা হন। অভিযুক্তরা তখন লাঠি নিয়ে পার্থের উপর ঝাপিয়ে পড়ে বলে অভিযোগ। বাঁশ দিয়ে মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত করা হয়। আমি বাঁচাতে গেলে অভিযুক্তরা আমাকে হুমকি দিয়ে অন্ধকারে গা ঢাকা দেয়। কালিয়াগঞ্জ থানার আইসি দীপাঞ্জন দাস বলেন, থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। আইন আইনের কাজ করছে।

- Advertisement -

এই বিষয়ে অভিযুক্ত কপিল দেব বর্মন বলেন, বিজেপি ও কংগ্রেসের প্রার্থীর দেওয়াল লিখনের মাঝে এমনভাবে এবিভিপির পোস্টার লাগানো হয়, তাতে সংযুক্ত মোর্চার কালিয়াগঞ্জ বিধানসভার প্রার্থী প্রভাস সরকারে নামের কিছুটা অংশ ঢেকে যায়। স্থানীয় মানুষেরা তাঁকে এই ভাবে পোস্টার লাগানোর কারণ জিজ্ঞাসা করলে, পার্থ রায় উলটে দেখে নেবার হুমকি দেন। এতে স্থানীয়রা প্রত্যেকে ক্ষুব্ধ হন। তাঁকে ঘটনাস্থল থেকে চলে যেতে বলা হয়। সাইকেল নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় পার্থ রাস্তার পাশে থাকা ড্রেনে পড়ে মাথায় চোট পান। এদিকে, আহত এবিভিপির সদস্য পার্থ মন্তব্য করেন, এবিভিপির পোস্টার লাগাতে গেলে অভিযুক্তরা তাঁর উপর নির্মমভাবে হামলা চালায়। এবিভিপির লাগানো পোস্টার ছিঁড়ে দেওয়া হয়। বাঁশ দিয়ে তাঁর মাথায় আঘাত করা হয়েছে।