রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত হলদিবাড়ি, তৃণমূল নেতাকে মারধরের অভিযোগ

126

 

হলদিবাড়ি, ২৯ মার্চ: হোলির রাতে রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল হলদিবাড়ি। সোমবার রাতে এক তৃণমূল কংগ্রেসের বুথ সভাপতিকে মারধরের অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে। জখম তৃণমূল নেতৃত্বের নাম বিশ্বনাথ রায়। তাঁকে হলদিবাড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে খবর। বিশ্বনাথ রায়ের অভিযোগ, এদিন রাতে দলীয় প্রার্থীর হয়ে প্রচার শেষে বাড়ি ফেরার সময় তাঁকে বিজেপি কর্মীরা পিছন থেকে আক্রমণ করে। চোখ বেঁধে মারধর করেন। পাশাপাশি ,পরণের পোশাক খুলে হাত-পা বেঁধে রাস্তা সংলগ্ন বাঁশ ঝাড়ে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় বিজেপি কর্মীরা। কিল, ঘুষি মেরে তাঁর মুখ, মাথা ও পিঠ ফাঁটিয়ে দেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -

জানা গিয়েছে, সংজ্ঞাহীন হয়ে সেখানেই দীর্ঘ সেখানেই তিনি সময় পড়ে ছিলেন। এরপর দীর্ঘ সময় বাড়িতে না ফেরায় ওই এলাকার দলীয় কর্মী রমানাথ রায় বিশ্বনাথবাবুর খোঁজে ওই এলাকায় যান। তিনিও বিজেপির কর্মীদের দ্বারা আক্রান্ত হন বলে অভিযোগ। সেখান থেকে কোনও মতে পালিয়ে তিনিই বিশ্বনাথবাবুকে হাত-পা বাঁধা ও অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করেন। এই ঘটনায় হলদিবাড়ি ব্লকের হেমকুমারি গ্রাম পঞ্চায়েতের ফকিরপাড়া এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। খবর পেয়ে হলদিবাড়ি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতির সামাল দেয়।

এই ঘটনায় তৃণমূল কংগ্রেসের হলদিবাড়ি ব্লক কমিটির সভাপতি অমিতাভ বিশ্বাস বলেন, বিজেপি কর্মী সমর্থকরা ২৩৫ নম্বর বুথ সভাপতির ওপর হামলা চালায়। তাঁরা বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করবেন। লোকসভা পরবর্তীতে ওই এলাকায় তৃণমূলের শক্তি বৃদ্ধিতে আতঙ্কিত হয়ে বিজেপি কর্মীরা এমন ঘটনা ঘটায়। যদিও, তৃণমূল কংগ্রেসের অভিযোগকে অস্বীকার করেছেন বিজেপির হলদিবাড়ি দক্ষিণ মন্ডল কমিটির সভাপতি প্রভাত রায়। তিনি বলেন, এর সঙ্গে বিজেপির কোনও সম্পর্ক নেই। বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ করা হচ্ছে বলে তিনি পালটা তোপ দেগেছেন। একইসঙ্গে তিনি দাবি করেন, এসব তৃণমূলের সাজানো ঘটনা।