সংখ্যালঘুদের বিজেপিতে যোগদানে বাঁধা দেওয়ার অভিযোগ উঠল শাসকদলের বিরুদ্ধে

756

সামসী, ২ ডিসেম্বরঃ শাসকদলের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু মুসলিমদের বিজেপিতে যোগদানে বাঁধা দেওয়ার অভিযোগ উঠল। মঙ্গলবার চাঁচল ২ নম্বর ব্লকের গৌড়হন্ড গ্রাম পঞ্চায়েতের আলাদিপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় বিজেপির যোগদান কর্মসূচি ছিল।ওই যোগদান কর্মসূচিতে মারধর এবং মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে সংখ্যালঘু মুসলিমদের আসতে দেওয়া হয়নি বলে শাসকদলের বিরুদ্ধে বিজেপি অভিযোগ তুলল। যদিও, শাসকদল অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

একুশের নির্বাচনকে সামনে রেখে মালদার রাজনীতি অন্যমাত্রা নিয়েছে। এদিকে, বিজেপি পদ্মফুল ফোটাতে মরিয়া। এদিন চাঁচল ২ নম্বর ব্লকের গৌড়হন্ড গ্রাম পঞ্চায়েতের আলাদিপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় বিজেপি যুব মোর্চার উদ্যোগে একটি যোগদান পর্ব অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ওই যোগদান পর্ব ওই পঞ্চায়েতের চাঁদপুর এলাকার প্রায় শতাধিক সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ যোগদান করার কথা ছিল। কিন্তু, অভিযোগ তৃণমূলের গুণ্ডাবাহিনী যোগদানকারীদের বাড়িতে গিয়ে হুমকি দেয়। বিজেপিতে যদি যোগদান করলে, তাঁদেরকে গ্রামে ঢুকতে দেওয়া হবে না। যদিও, শাসকদলের ভয় উপেক্ষা করেই এদিনের যোগদান অনুষ্ঠানে ২০ জন সংখ্যালঘু পরিবারের সদস্যরা বিজেপিতে যোগদান করেছেন।

- Advertisement -

নবাগতদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন মালদা জেলা বিজেপির সম্পাদক দীপঙ্কর রাম। এদিনের এই যোগদান নিয়ে বিজেপির জেলা সম্পাদক দীপঙ্কর রাম অভিযোগ করে বলেন, সংখ্যালঘুদের ভুল বুঝিয়ে আর বিজেপির থেকে দূরে রাখা যাবে না। তাই, শাসকদল মারধর এবং মিথ্যে মামলার ভয় দেখিয়ে, তাঁদের যোগদান ঠেকানোর চেষ্টা করে চলেছে। বিজেপির ১৬ নম্বর জেডপির সভাপতি ত্রিবেণী সাহা বলেন, প্রায় একশো জন যোগদান করার কথা। কিন্তু, উপস্থিত হতে পেরেছেন মাত্র ২৫ জন। বাকিদের তৃণমূল নানান ভাবে ভয় দেখিয়ে জোর করে আসতে দেয়নি। বিষয়টি জেলা ও রাজ্য নের্তৃত্বকে জানানো হয়েছে।

এদিকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া নাসিরুদ্দিন নামের এক যোগদানকারী বলেন, আমারা দীর্ঘদিন থেকে তৃণমূল কংগ্রেস করলেও, তেমন কোনও সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছিনা। তিনি আরও জানান, তৃণমূল করলেও বিজেপির কাজ খুব ভাল লাগে। বিজেপি মানুষের পাশে থাকে সর্বক্ষণ। মানুষের জন্য কাজও করে। কারও প্ররোচনায় নয়, স্বেচ্ছায় বিজেপিতে যোগদান করেছি।

যদিও, যোগদানে বাধা দেওয়ার এই অভিযোগকে অস্বীকার করেছেন শাসকদল। তৃণমূল কংগ্রেসের চাঁচল ২ নম্বর ব্লক সভাপতি হবিবুর রহমান মুখিয়া বলেন, বিজেপির যোগদান পর্বে লোক হয়নি। তাই এইসব মিথ্যে অভিযোগ করছেন তাঁরা।তারাও বুঝে গিয়েছেন মমতা বন্দোপাধ্যায়েী জয় নিশ্চিত। তাই, হতাশাগ্রস্ত হয়ে এই সব গুজব ছড়াচ্ছেন। তিনি আরও জানান, আমাদের সরকার সাধারণ মানুষের জন্য সবসময় কাজ করে। মানুষ সবসময় শাসকদলের পাশে থাকবেন। কে কী বললো তাতে কোনও যায় আসেনা বলে সাফ জানিয়েছেন ব্লক সভাপতি।