করোনা আক্রান্ত হাতুড়ে দোকানে বসে ওষুধ বিক্রি করছেন

1234

রাঙ্গালিবাজনা: ঘরে ঘরে জ্বরে ভুগছেন অনেকেই। অথচ, তাদের বেশির ভাগই কোভিড টেস্টের জন্য রাজি নন। এদিকে যাদের কোভিড টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে তাদের মধ্যে অনেকেই প্রকাশ্যে ঘোরাঘুরি করছেন। এ কারণে আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট বীরপাড়া ব্লকের বিভিন্ন এলাকায় আতঙ্কিত সাধারণ মানুষ। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এলাকার ওষুধের দোকানগুলিতে দেদার বিকোচ্ছে প্যারাসিটেমল। এমনকি খয়েরবাড়ি গ্রামপঞ্চায়েতের মাদ্রাসা মোড়ের এক করোনা পজিটিভ হাতুড়েকে শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত দোকানে বসে ওষুধ বিক্রি করতে দেখা গিয়েছে। ছেকামারি গ্রামের এক প্রৌঢ় করোনায় আক্রান্ত হয়ে শিলিগুড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। শনিবার মোবাইল ফোনে তিনি বলেন, “ছেকামারিতে ঘরে ঘরে জ্বর ভুগলেও অনেকেই টেস্ট করাতে চাইছেন না।”

এদিকে, ইসলামাবাদ গ্রামের এক করোনা আক্রান্ত রোগী শুক্রবারও মাদ্রাসা মোড়ের দোকানে যান। খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। শণিবার তিনি বলেন, “আমি তো মাত্র একদিন কিছুক্ষণের জন্য বাজারে গিয়েছিলাম। কিন্তু এলাকার করোনা পজিটিভ এক হাতুড়ে তো দোকান খুলে রীতিমতো ওষুধপত্র বিক্রি করছেন।” ওই হাতুড়ে শনিবার বলেন, “আমি স্যানিটাইজার ব্যবহার করছি। দূরত্ব বজায় রেখে চিকিৎসা করছি।”

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, ইসলামাবাদ গ্রামে শুক্রবার এক যুবক শ্বশুরবাড়ির সামনে ধর্নায় বসেন। তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ওই হাতুড়েই যুবককে স্যালাইন দেন। মাদারিহাট ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক দেব্যজ্যোতি চক্রবর্তী বলেন, “এলাকায় প্রচার অভিযান চলছে। কিন্তু কেউ যদি লালা নমুনা পরীক্ষা করাতে রাজি না হলে বলপ্রয়োগ করার নিয়ম নেই। যাদের রিপোর্ট পজিটিভ মিলছে তাদের বাড়িতেই থাকা উচিত। কিন্তু এসব ব্যাপারে মানুষ সচেতন না হলে মুশকিল।”