অসুস্থ সন্তানের র‌্যাশন কার্ড পেতে হয়রানি

চাঁদকুমার বড়াল, কোচবিহার : পাঁচ কেজি চাল পেতে অসুস্থ শিশুর র‌্যাশন কার্ডের জন্য আবেদন করা স্লিপ নিয়ে ঘুরছেন এক অসহায় বাবা। সেই স্লিপ নিয়ে খাদ্য দপ্তর থেকে শুরু করে বিডিও অফিসেও গিয়েছেন ওই ব্যক্তি। কিন্তু কার্ড কোথায় বা কীভাবে পাওয়া যাবে তার উত্তর মেলেনি। কোচবিহার-২ ব্লকের উন্নয় আধিকারিক টি পি ভুটিয়া অবশ্য বলেন, বিষয়টি খাদ্য দপ্তরে জানানো হয়েছে।

কোচবিহার-২ ব্লকের ঢ্যাংঢিংগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের মরা নদীর কুঠি এলাকার বাসিন্দা সুব্রত দে। বাড়ি বলতে রেলের জমিতে আট ফুটের ঝুপড়ি। সেখানেই দুই সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে গাদাগাদি করে থাকেন। দুই সন্তানের মধ্যে আড়াই বছরের ছেলে আবার জন্মের পর থেকেই অসুস্থ। সাহায্য তুলে তার চিকি‌সা চলছে কোনওভাবে। এই সন্তানের জন্য প্রায় একবছর আগে র‌্যাশন কার্ডের আবেদন জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই কার্ড এখনও মেলেনি। সুব্রতবাবু জানালেন, তিনি দিনমজুরের কাজ করেন। সবদিন কাজ থাকে না। যা আয় হয়, তাই দিয়ে কোনওভাবে সংসার চালান। লকডাউনের পর থেকে কাজ নেই। তাঁর, স্ত্রীর এবং এক সন্তানের তিনটি র‌্যাশন কার্ডে যে চাল পেয়েছেন তা দিয়ে কোনওভাবে পেট ভরাচ্ছেন। কিন্তু যা চাল মিলেছে তা দিয়ে গোটা মাস চলবে না। তাই অসুস্থ সন্তানের যে কার্ডের আবেদন করেছিলেন সেটা পেলে এই দুর্দিনে আরও পাঁচ কেজি চাল পাওয়া যেত। কিন্তু কার্ড বা কুপন কিছুই তিনি পাননি বলে জানিয়েছেন। আবেদন করার পর যে স্লিপ দেওয়া হয়েছিল সেটা নিয়ে বিডিও অফিস এবং খাদ্য দপ্তরে ঘুরেছেন তিনি। কিন্তু সেখান থেকে বলা হয়েছে কার্ড এসেছে। সেটা বেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু সেই কার্ড কোথা থেকে পাবেন তার হদিস দিতে পারেনি কেউ। তিনি বলেন, ছেলে হাঁটতে পারে না, কথা বলতে পারে না। যদি কিছু সাহায্য মিলত খুব ভালো হত। অন্তত ছেলের কার্ড পেলে তো পাঁচ কেজি চাল মিলত। সেটা দিয়ে আরও কিছুদিন না হয় চালিয়ে নিতাম।

- Advertisement -