যুবকের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার, খুনের অভিযোগ

170

আসানসোল: এক যুবককে খুনের অভিযোগ উঠল আসানসোলের কুলটিতে। বুধবার কুলটি থানার ২ নম্বর চিনাকুড়ি এলাকায় একটি ইসিএলের পরিত্যক্ত আবাসন থেকে ওই যুবকের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

মৃতের নাম জিতেন্দ্র পাসোয়ান (৪০)। জিতেন্দ্রকে পরিকল্পনা করে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ পরিবারের লোকেদের। পুলিশ একটি খুনের মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

- Advertisement -

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ২ নম্বর চিনাকুড়ি এলাকায় ইসিএলের পরিত্যক্ত আবাসনে দেখভাল করার জন্য একজন নিরাপত্তারক্ষী রাখা হয়েছিল। জিতেন্দ্র পাসোয়ান নামে ওই যুবক গত কয়েকদিন ধরে পারিবারিক অশান্তির কারণে নিজের বাড়ি ছেড়ে ওই আবাসনে থাকতেন। তিনি নিরাপত্তারক্ষীর কাছ থেকে চাবি নিয়ে রেখেছিলেন। মঙ্গলবার রাতেও জিতেন্দ্র ওই আবাসনে ছিলেন। বুধবার ওই আবাসনের মধ্যে তাঁর রক্তাক্ত দেহ দেখতে পান আবাসনের নিরাপত্তারক্ষী। তিনি বিষয়টি স্থানীয় বাসিন্দাদের জানান। ঘটনাস্থলে আসে কুলটি থানার নিয়ামতপুর ফাঁড়ির পুলিশ।

মৃতদেহের পাশ থেকে উদ্ধার হয়েছে বেশকিছু মদের বোতল। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে সেখানে মদের আসর বসেছিল। জিতেন্দ্র ছাড়াও আরও ৪-৫জন সেখানে ছিলেন। মদের আসরে কোনওরকম ঝামেলা থেকেই এই খুন কিনা, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

আসানসোল-দুর্গাপুর পুলিশের ডিসিপি (পশ্চিম) অনমিত্র দাস বলেন, ‘যুবককে খুন করা হয়েছে। যে আবাসন থেকে যুবকের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয়েছে সেখান থেকে বেশকিছু মদের বোতলও মিলেছে। যা থেকে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে, গতরাতে সেখানে মদের আসর বসেছিল। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।’