বিজেপি কর্মীর বাড়িতে হামলার অভিযোগে বিদ্ধ তৃণমূল

70

হরিশ্চন্দ্রপুর: ফলাফল ঘোষণা হওয়ার ২৪ ঘণ্টাও কাটেনি। এরইমধ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনার অভিযোগ উঠল হরিশ্চন্দ্রপুরে। রবিবার নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর থেকেই নানান জায়গা থেকে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার খবর আসছে। সোমবার হরিশ্চন্দ্রপুর ৪৬ বিধানসভার ২৩৩ নম্বর বুথ সভাপতি বাবু রবি দাসের বাড়িতে হামলা চালায় তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা। পরিবারের লোকজনকেও মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। পাশাপাশি, প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়। অন্যদিকে, রবিবার গভীর রাতে হরিশ্চন্দ্রপুর হাসপাতাল মোড়ে এক বিজেপি কর্মী কালু দাসের বাড়ি ভাঙচুর করা হয় বলেও অভিযোগ ওঠে শাসকদলের বিরুদ্ধে। যদিও এটি বিজেপির গোষ্ঠি কোন্দল বলে দায় এড়িয়ে যাচ্ছে তৃণমূল-কংগ্রেস। ঘটনার তদন্তে নেমেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানা পুলিশ।

বিজেপি মালদা জেলা সম্পাদক কিষাণ কেডিয়া বলেন, ‘এই গণ্ডগোল আমাদের দলের কোনও গোষ্ঠীকোন্দলের জেরে হয়নি। গতকালের পর থেকে দেখা যাচ্ছে নানান জায়গায় বিজেপি কর্মী সমর্থকদের উপর হামলা চালাচ্ছে তৃণমূল-কংগ্রেস। হরিশ্চন্দ্রপুরে এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয়েছে। আমরা হাতজোড় করে বলছি এলাকার মানুষ আপনাদের ক্ষমতায় এনেছে। আপনারা মানুষের জন্য কাজ করুন।’

- Advertisement -

বাবু রবি দাসের মা রেবতী রবি দাস বলেন, ‘আমার ছেলে বিজেপির বুথ সভাপতি। আমি আর আমার মেয়ে নিজের বাড়িতে দাঁড়িয়ে ছিলাম। তৃণমূলের ছেলেরা মিছিল করতে করতে এসে সোজা আমার বাড়ির ছাদের টিনে লাঠি চালায়। প্রতিবাদ করায় দু’তিন জন মিলে আমাকে ধরে রাখে। তারপর আমার বাড়িতে ঢুকে ভাঙচুর করে ও ছেলের উপর হামলা চালায়।

তৃণমূল জেলা সাধারণ সম্পাদক বুলবুল খান বলেন, ‘এর আগেও দেখেছেন বিজেপি কর্মীরা নিজেদের পার্টি অফিস ভাঙচুর করেছে। বিজেপি হরিশ্চন্দ্রপুরের নিজের পায়ের তলার জমি হারিয়েছে। এগুলো বিজেপির গোষ্ঠিকোন্দলের ফলাফল। তৃণমূলের উপর মিথ্যা অভিযোগ আনছে বিজেপি।’