ভাগ্নেকে মারধরের অভিযোগ সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া মামার বিরুদ্ধে

60

হরিশ্চন্দ্রপুর: স্থানীয় ওষুধের দোকানে বসে দুয়ারে সরকারের প্রচার সারছিল ভাগ্না। অভিযোগ, এমন সময় সদলবলে তাঁর ওপর হামলা করে মামা জাবেরুল ইসলাম। শনিবার রাতে ঘটা এই ঘটনার প্রেক্ষিতে থানায় মামা সহ একাধিক যুবকের নামে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করল ভাগ্না আম্বার আলি। এদিকে অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করেছে হরিশচন্দ্রপুর থানার পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে খবর, আম্বার রামপুর বুথের প্রাক্তন তৃণমূল সভাপতি। অন্যদিকে তার মামা জাবেরুল সম্প্রতি তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। এরই জেরে দুই পরিবারের মধ্যে চাপা রাজনৈতিক উত্তেজনা তৈরি হয়। সেক্ষেত্রে স্থানীয়দের অনুমান দুই পরিবারের পারস্পরিক দন্ধের জেরেই এই ঘটনা। এর জেরে এলাকায় রাজনৈতিক উত্তেজনার পারদ চরমে পৌঁছেছে।

- Advertisement -

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি রামপুরে দুয়ারে সরকার কর্মসূচি শিবির হওয়ার কথা। শিবিরে গেলে কি সুবিধা মিলবে তা নিয়েই বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলছিলেন। অভিযোগ, ওই সময়েই আম্বারের উপর হামলার ঘটনাটি ঘটে। ঘটনার পরেই গা ঢাকা দিয়েছে অভিযুক্তরা। জানা গিয়েছে, অতর্কিত হামলার জেরে গুরুতর জখম হন আম্বার। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে চিকিৎসার জন্য।

আক্রান্ত তৃণমূলের প্রাক্তন বুথ সভাপতি আম্বার আলির অভিযোগ, দুয়ারে সরকারের প্রচার চালনোয় হঠাৎই একদল বিজেপি কর্মী আমার উপর হামলা চালায়। বাঁশ,লাঠিসাটা ও সাবল দিয়ে আঘাত করে।

হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নং তৃণমূল যুব কংগ্রেসের যুব সভাপতি জিয়াউর রহমান জানিয়েছেন, বিজেপির দুস্কৃতীরাই এই কর্মকাণ্ড ঘটিয়েছে। বিজেপি তৃণমূলকে এইভাবে ভেঙে ফেলতে পারবে না। সরাসরি রাজনীতির ময়দানে আসুক।

বিজেপি মালদা জেলা কমিটির সম্পাদক দীপঙ্কর রাম অবশ‍্য বলেন, ‘ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দেওয়ায় তৃণমূল নানান রকম চক্রান্ত চালাচ্ছে আমাদের কর্মীদের উপর। জাবেরুল ও তার তিন ছেলে সহ আরও  অনেকে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। তাদের ফাঁসানোর জন‍্য তৃণমূল নিজেরা লড়ে নাটক তৈরি করেছে। তাদের অস্তিত্ব শেষ তারা বুঝে গেছে।’