তৃণমূলের পতাকা পোড়ানোর অভিযোগ ময়নাগুড়িতে

69

ময়নাগুড়ি: তৃণমূলের দলীয় পতাকা ছিঁড়ে পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল ময়নাগুড়িতে। ঘটনায় বিজেপির দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। অভিযোগ, ময়নাগুড়ির চূড়াভান্ডার গ্রাম পঞ্চায়েতের ভাঙ্গামালি বুথে তৃণমূলের দলীয় পতাকা ছিঁড়ে পুড়িয়ে দিয়েছে বিজেপির লোকেরা। যদিও এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন বিজেপি নেতৃত্ব। আগামী ১৭ এপ্রিল ময়নাগুড়ি বিধানসভায় নির্বাচন। তার আগে এই ঘটনাকে ঘিরে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর।

বিজেপির লোকেরা ময়নাগুড়ির ভাঙ্গামালি বুথের ৫০টিরও বেশি দলীয় পতাকা ছিঁড়ে পুড়িয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ তৃণমূলের। চূড়াভান্ডার অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি হৃদয় রায় বলেন, ‘বিজেপির নেতারা তাঁদের কিছু কর্মীদের নেশা করিয়ে এধরনের কাজ করাচ্ছেন। আসলে বিজেপি বুঝে গিয়েছে, তারা ময়নাগুড়িতে হারতে চলেছে। তাই তারা এইসব ঘটনা ঘটাচ্ছে। সাধারণ মানুষ বুঝে গিয়েছে বিজেপি একটা সন্ত্রাসবাদী দল। আমরা এলাকায় শান্তিশৃঙ্খলা চাই। তাই বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে জানিয়েছি। তারাই এসে বিষয়টি দেখবে।’ তৃণমূল নেতার দাবি, শুধু ভাঙ্গামালি নয়, ময়নাগুড়ির বিভিন্ন জায়গায় তাঁদের দলীয় পতাকা ও পোস্টার ছিঁড়ে পুড়িয়ে দিচ্ছে বিজেপির দুষ্কৃতীরা।

- Advertisement -

যদিও এই অভিযোগকে পুরোপুরি অস্বীকার করেছে বিজেপি। তাদের তরফে দাবি করা হয়েছে, ময়নাগুড়িতে বিজেপি হারবে না, হারবে তৃণমূল কংগ্রেস। তাই তৃণমূলিরা এটা বুঝতে পেরে নিজেরাই এই ঘটনা ঘটিয়ে সন্ত্রাসের বাতাবরণ তৈরির চেষ্টা করছে। বিজেপির ময়নাগুড়ি উত্তর মণ্ডল সভাপতি রথীন্দ্রনাথ আচার্য্য বলেন, ‘বিজেপি এইসব কাজ করে না। বরং তৃণমূলের লোকেরা বিভিন্ন জায়গা থেকে আমাদের দলীয় পতাকা, পোস্টার উধাও করে দিচ্ছে। তৃণমূল দলটাই এমন, যা মুখে আসে তাই বলে। আমরা কোনও সন্ত্রাস তৈরি করি না। সন্ত্রাস সৃষ্টি করা, টাকা নেওয়া এবং মানুষ খুন করা তৃণমূলিদের কাজ।’