স্বাস্থ্য আধিকারিকের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

153

জলপাইগুড়ি: স্বাস্থ্য আধিকারিকের সঙ্গে দুর্ব্যবহার এবং তাঁকে হেনস্তার প্রতিবাদে শুক্রবার বিক্ষোভে শামিল হন চিকিৎসক, নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা। এদিন তাঁরা কাজ চালু রেখে কালো ব্যাজ পরে প্রতিবাদ জানান। তাঁদের দাবি, বৃহস্পতিবার জলপাইগুড়ি জেলা হাসপাতালের ডিআরএস বিল্ডিংয়ে করোনার টিকা নিতে এসে আইনজীবীদের একাংশ জেলা উপ মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক (৩) শংকরলাল ঘোষের সঙ্গে অভব্য আচরণ এবং দুর্ব্যবহার করেন। সেই ঘটনার প্রতিবাদেই এদিন আন্দোলনে শামিল হন চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা। যদিও একাংশ আইনজীবীর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছে জলপাইগুড়ি বার অ্যাসোসিয়েশন।

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার। ব্যাংক, রেল, বনদপ্তরের পাশাপাশি সেদিন ডিআরএস বিল্ডিংয়ের ক্যাম্পে টিকা নিতে আসেন জলপাইগুড়ি আদালতের একাংশ আইনজীবী। টিকা দেওয়ার নিয়ম অনুযায়ী আইনজীবীদের কাছে একটি নামের তালিকা চাওয়া হয়। যেখানে নামের পাশাপাশি আধার নম্বর উল্লেখ করার কথা বলা হয়েছিল স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে। স্বাস্থ্য দপ্তরের দাবি, আইনজীবীরা বার অ্যাসোসিয়েশনের প্যাডে তাঁদের নামের তালিকা প্রদান করতে অস্বীকার করেন। সেই সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত স্বাস্থ্য আধিকারিক শংকরলাল ঘোষ জানিয়ে দেন, নামের নির্দিষ্ট তালিকা ছাড়া টিকা দেওয়া সম্ভব নয়। এরপরই স্বাস্থ্য আধিকারিকের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন আইনজীবীদের একাংশ। তাঁরা শংকরলালবাবুর সঙ্গে দুর্ব্যবহার ও তাঁকে হেনস্তা করেন বলে অভিযোগ। যার জেরে চাকরি ছেড়ে দেওয়ার কথাও শোনা যায় তাঁর মুখে।

- Advertisement -

ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের জলপাইগুড়ি শাখার ভাইস প্রেসিডেন্ট চিকিৎসক রাহুল ভৌমিক জানান, একজন স্বাস্থ্য আধিকারিককে যেভাবে আইনজীবীরা হেনস্তা করেছেন, তা নিন্দনীয়। ঘটনার কথা লিখিতভাবে জেলা শাসককে জানানো হবে।

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মচারী ফেডারেশনের জলপাইগুড়ি জেলা স্বাস্থ্য শাখার কনভেনার কুন্তল ভট্টাচার্য জানান, স্বাস্থ্য আধিকারিককে হেনস্তার প্রতিবাদে তাঁরা কালো ব্যাজ পরে প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন।

অন্যদিকে, জলপাইগুড়ি বার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক অভিজিৎ সরকার জানান, আইনজীবীদের বিরুদ্ধে স্বাস্থ্য আধিকারিককে হেনস্তার যে অভিযোগ তোলা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।