৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ প্রতিবেশী যুবকের বিরুদ্ধে

339
প্রতীকী ছবি।

গাজোল: আদিবাসী শিশু কন্যা ধর্ষণের ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়াল গাজোলের হাতিমারি সংলগ্ন মালঞ্চা গ্রামে। খাবারের লোভ দেখিয়ে পড়শি যুবক বুধবার দুপুরে বাড়ির অদূরে পাটক্ষেতে নিয়ে গিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ।

এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার সকালে গাজোল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতার মা। অভিযোগের ভিত্তিতে ইতিমধ্যে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে গাজোল থানার পুলিশ। শারীরিক পরীক্ষার জন্য শিশুটিকে মালদা মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে।

- Advertisement -

নির্যাতিতার পরিবার সূত্র খবর, বুধবার দুপুরে বাড়ির সামনেই খেলা করছিল শিশুটি। সেই সময় ভিনরাজ্য ভেরৎ প্রতিবেশী এক যুবক খাবারের লোভ দেখিয়ে পাশের পাটের ক্ষেতে নিয়ে যায়। সেখানেই জোর করে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। যন্ত্রণার চোটে শিশুটি চিৎকার শুরু করলে গলা চেপে খুনের চেষ্টা করে ওই যুবক। সে সময় পাশের বাড়ির এক ব্যক্তি গরু খুঁজতে পাট ক্ষেতের পাশে যায়। তিনি গোঙানির আওয়াজ শুনে পাটক্ষেত থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করেন। এদিকে পাটক্ষেতে কাউকে ঢুকতে দেখে ওই যুবক পালিয়ে যান বলেও অভিযোগ করা হয়েছে।

এদিকে অচৈতন্য অবস্থায় ওই বালিকাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাতিমারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু, সেখানে চিকিৎসার না হওয়ার অভিযোগ তোলা হয়েছে পরিবারের তরফে। বাধ্যহয়ে শিশুটিকে বাড়িতে নিয়ে আসেন পরিবারের লোক। বাড়িতেই স্থানীয় এক হাতুড়ে ওই শিশুর চিকিৎসা করেন।

এদিন ওই শিশুর পরিবার তরফে এই ন্যক্কারজনক ঘটনার দ্রুত বিচার প্র্ক্রিয়া শেষ করে ধৃত যুবকের ফাঁসির দাবি করা হয়েছে। গাজোল থানা সূত্রে খবর, অভিযোগ পাওয়ার পরেই ওই যুবককে গ্রেপ্তার করে ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।