সরকারি কর্মসূচিতে পিকের ভলান্টিয়ার নিয়োগের অভিযোগ

রায়গঞ্জ : দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে তৃণমূলের ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের কর্মীরা শামিল। এমনটাই অভিযোগ উত্তর দিনাজপুর জেলার বিজেপি নেতৃত্বের। মঙ্গলবার থেকেই উত্তর দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন ব্লক ও পুর এলাকায় দুয়ারে সরকার নামে সরকারি কর্মসূচির সূচনা হয়। চলবে ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত।

এদিন কর্ণজোড়ায় জেলা কার্যালয়ের বিবেকানন্দ সভাঘরে জেলা শাসক অরবিন্দকুমার মিনা সাংবাদিক বৈঠক করে জেলায় দুয়ারে সরকার কর্মসূচি চালুর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করেন। তারপর থেকেই জেলার বিভিন্ন ব্লক এবং পুর এলাকায় অস্থায়ী শিবির গড়ে সরকারি বিভিন্ন প্রকল্পের পরিষেবা স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে পৌঁছে দিতে উপস্থিত হয়েছে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। এজন্য শিবিরের বিভিন্ন প্রকল্পের ভার দেওয়ার কথা মূলত সরকারি দপ্তরের কর্মচারী এবং আধিকারিকদের। কিন্তু এদিন কর্মসূচি সূচনার দিনই বিতর্ক দেখা দেয়। রায়গঞ্জের অদূরে হেমতাবাদ ব্লকের হেমতাবাদ আদর্শ হাইস্কুল ক্যাম্পাসে দুয়ারে সরকার কর্মসূচির ক্যাম্পে সরকারি প্রকল্পের অস্থায়ী কার্যালয় সামলাতে নজরে পড়ে পিকে টিমের কর্মীদের। ওইসব কর্মীদের পরিচয় জিজ্ঞাসা করতেই তাঁদের সাফ জবাব, আমরা পিকে টিমের ভলান্টিয়ার হিসাবে দায়িত্বে আছি।

- Advertisement -

এদিন হেমতাবাদ আদর্শ হাইস্কুলে দুয়ারে সরকার শিবিরের একাধিক প্রকল্পের সামনে ভিড় করা উপভোক্তাদের তদারকিতে ব্যস্ত যুবক আনসার আলি বলেন, আমি পিকে টিমের ভলান্টিয়ার হিসাবে এখানকার শিবিরের দায়িত্বে রয়েছি। দুয়ারে সরকার ক্যাম্পের সমস্ত ছবি প্রতি মুহূর্তে হোয়াটসঅ্যাপে কলকাতায় পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কেমন ভিড় হচ্ছে, লোকজন হচ্ছে, কী সমস্যা হচ্ছে সব পিকে টিমকে জানাতে হবে। এই ঘটনায় বিজেপির জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ির অভিযোগ, বিধানসভা ভোটের আগে এখন সরকারি প্রকল্প দিয়ে ভোটারদের গলায় বেসরকারি ভোটকুশলী পিকের সংস্থার কর্মীদের নিযুক্ত করা হচ্ছে। আসলে ভোটের মুখে সরকারি টাকায় তৃণমূল দলের প্রচার করা হচ্ছে।

তবে বেসরকারি কর্মী নিয়োগের ঘটনা অস্বীকার করে হেমতাবাদের বিডিও পৃথ্বীশ দাস বলেন, দুয়ারে সরকার সম্পূর্ণ সরকারি কর্মসূচি। এখানে সরকারি কর্মী এবং আধিকারিকদের যুক্ত করা হয়েছে। বাইরের লোকজন থাকার কোনও প্রশ্নই নেই। এই কর্মসূচির বিষয়ে রায়গঞ্জের পুরপ্রধান সন্দীপ বিশ্বাস বলেন, এদিন শহরের ১ এবং ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে শিবির গড়ে নয়া কর্মসূচির মাধ্যমে প্রকল্পের পরিষেবা দেওয়া হয়। অন্যদিকে, এদিন ইসলামপুর পুরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের আশ্রমপাড়া এবং কালিয়াগঞ্জ ব্লকের ভাণ্ডার পঞ্চায়েতের স্কুলমাঠে অস্থায়ী শিবির তৈরি করে নয়া কর্মসূচির মাধ্যমে স্থানীয় বাসিন্দাদের পরিষেবা দেওয়া হয়।