আয়ার বিরুদ্ধে সদ্যোজাতকে ছুড়ে ফেলার অভিযোগ

72

রায়গঞ্জ: দাবিমতো টাকা না মেলায় সদ্যোজাত শিশুকে কংক্রিটের মেঝেতে ছুড়ে ফেলার অভিযোগ উঠল এক আয়ার বিরুদ্ধে। সোমবার দুপুরে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল চত্বরে উত্তেজনা ছড়ায়। ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানান প্রসূতির পরিবারের লোকজন। খবর পেয়ে র‍্যাফ সহ বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে যায়। অভিযুক্ত আয়া হাসপাতাল থেকে পালানোর চেষ্টা করলে উত্তেজিত জনতা তাঁকে ধরে ওয়ার্ডে নিয়ে আসে। পুলিশ সুপার সুমিতকুমার বলেন, এখনও কোনও অভিযোগ জমা পড়েনি। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, রায়গঞ্জের হাতিয়ার পাঠানটুলির বাসিন্দা মাসুদ আলির স্ত্রী মেহেরুল বেগম গত শুক্রবার মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন। রবিবার রাতে তিনি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। সোমবার সকালেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাঁকে ছুটি দেয়।  পরিবারের দাবি, প্রসূতির স্বামী মাসুদ আলির কাছে এক হাজার টাকা বকশিশ দাবি করেন আয়া। কিন্তু এক হাজার টাকা দেওয়া সম্ভব নয় বলে জানান মাসুদ। তিনি আয়াকে আড়াইশো টাকা দেবেন বলে জানান। চলে দরকষাকষি।

- Advertisement -

অভিযোগ, এরপর হঠাৎই কোলে থাকা শিশুকে করিডরের বারান্দায় ছুড়ে ফেলেন আয়া। ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে মেডিকেল কলেজ চত্বরে। অন্য রোগীর পরিজনরাও ক্ষোভে ফেটেন পড়েন। অবস্থা বেগতিক বুঝে অভিযুক্ত আয়া ক্যাম্পাস ছেড়ে পালিয়ে যান। শিশুর মা মেহেরুল বেগম কাঁদতে কাঁদতে জানান, টাকায় না পোষানোয় একদিনের শিশুকে ছুড়ে ফেলে দেয় আয়া। বাচ্চার মাথায় মারাত্মক আঘাত লেগেছে।

এব্যাপারে মেডিকেলের সহকারি অধ্যক্ষ প্রিয়ঙ্কর রায় জানান, ঘটনার পরই পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। প্রসূতির পরিবারের অভিযোগ খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।