সাংহাইয়ে মার্কিন ছাত্রদের আটক করল চিনা পুলিশ

60
ছবি: সংগৃহীত

সাংহাই: দিন কয়েক আগেই আলাস্কায় মার্কিন-চিনা কূটনীতিকদের বৈঠকে তুমুল বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। আর সেই থেকেই আমেরিকা বনাম চিনের এই ঠান্ডা লড়াই এখন আর শুধু কূটনীতিকদের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। সম্প্রতি সাংহাইয়ের পুলিশ ছয় মার্কিন সহ মোট নয়জন শিক্ষার্থীকে আটক করেছে। এদিকে, শিক্ষার্থীদের দাবি তাঁরা নির্দোষ। পুলিশ বিনা প্ররোচনায় আটক তাঁদের আটক করেছে।

জানা গিয়েছে, ওইদিন রাতেই এক জন্মদিনের পার্টি থেকে আরো সাতজন শিক্ষার্থীর একটি দলকে আটক করা হয় যাঁরা যুক্তরাষ্ট্র, ফিনল্যান্ড, মরক্কো ও মালোয়েশিয়ার নাগরিক। আটকের পর শিক্ষার্থীরা মাদক গ্রহণ করে না করে না, সে বিষয়ে পরীক্ষা চালানো হয় এবং পরীক্ষার ফলাফল নেতিবাচক আসে। আটকের ১১ থেকে ১৬ ঘণ্টা পর তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়। স্বাভাবিকভাবেই ছাত্রদের ওপর চিনা পুলিশের এই বর্বর আচরণে বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে। কোনও সভ্য দেশের পুলিশ বিনা প্রমাণে ছাত্রদের গায়ে হাত তুলতে পারে না।

- Advertisement -

নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটির একজন মুখপাত্র জুন শিহ ওয়াশিংটন পোস্টকে বলেছেন, ‘কেন জন্মদিনের পার্টি থেকে সবাইকে আটক করেছিল তা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানে না। আমাদের ধারণা পুলিশ কোনও নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে টার্গেট করে এমন করেছে।’

এদিনের ঘটনায় একটা ব্যাপার নিশ্চিত। চিনা পুলিশের এই বর্বর আক্রমণের পর আমেরিকার সঙ্গে সম্পর্ক আরও ধাক্কা খেল চিনের। এর দাম হয়ত চোকাতে হবে ড্রাগনের দেশকে। এখন এই জল কতদূর গড়ায় সেটাই দেখার।