ব্যাটিং শুরু রাসেলের, চনমনে নাইটরা

আবু ধাবি : দুপুরের আবু ধাবিতে আচমকা মরুঝড়। কিছু পরেই আবহাওয়া পরিষ্কার!

মরুদেশে এমনটাই দস্তুর। আর আচমকা মরুঝড় এলেই প্রচণ্ড গরমটা একটু কমে যায়। স্থানীয়দের মেজাজও ভাল হয়ে যায়।

- Advertisement -

কলকাতা নাইট রাইডার্সের অন্দরের গুমোট হয়ে থাকা পরিবেশে এভাবেই এক ঝলক টাটকা বাতাস নিয়ে আজ আচমকাই হাজির হলেন দ্রে রাস। গত কাল হোটেলের ঘরে হ্যামস্ট্রিংয়ে সমস্যা কাটিয়ে পেশির জোর বাড়ানোর চেষ্টা শুরু করেছিলেন তিনি। সোশ্যাল দুনিয়ায় আন্দ্রে রাসেলের সেই ভিডিও ভাইরাল হতে দেরি হয়নি। আজ বিকেলে আবু ধাবির শেখ জায়েদ আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের অনুশীলনের মাঠে কেকেআরের জার্সি গায়ে নেমে পড়লেন তিনি।

শুরুতে হালকা জগিং। তারপর কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককুলামের সঙ্গে আলোচনা। আর তারপরই নেটের বাইরে ব্যাট হাতে পরিচিত মেজাজে ক্যারিবিয়ান কিং। প্রথমে থ্রো ডাউন নিলেন। কিছু পরে দলের নেট বোলারদের বিশেষ লাইনে বল করার নির্দেশ দিলেন। আর পরিচিত ছন্দ ও ভঙ্গিমায় হাঁটু মুড়ে বসে লং অন, ডিপ মিডউইকেটের উপর দিয়ে একের পর এক ডেলিভারি পাঠিয়ে দিলেন মাঠের বাইরে। দ্রে রাসের আগ্রাসন ও ছন্দ দেখার পর কলকাতা নাইট রাইডার্সের অন্দমরহলে স্বস্তি। রাসেলকে ব্যাট হাতে মাঠে দেখার পর প্রবল চাপ ও সমালোচনায় জর্জরিত অধিনায়ক ইয়োন মরগ্যানেও মুখেও হাসি দেখা গিয়েছে। যদিও তিনি মানসিকভাবে প্রবল চাপে।

অন্তত আধ ঘণ্টা ব্যাটিং চর্চার পর রাসেলকে হাত ঘোরাতেও দেখা গিয়েছে। যদিও পুরো রানআপ নিয়ে তিনি আজ বল করেননি। কিন্তু ব্যাট হাতে দলকে ভরসা দেওয়ার পাশে রাসেল বুঝিয়ে দিয়েছেন, বৃহস্পতিবার রাজস্থানে রক্তপাত ঘটিয়ে কেকেআরকে প্লে-অফে তোলার মানসিক প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন তিনি। সন্ধ্যার দিকে আবু ধাবি থেকে কেকেআরের এক প্রতিনিধি বলছিলেন, শেষ আইপিএলে নাইটরা প্লে-অফের কাছে গিয়ে লক্ষ্যপূরণ করতে পারেননি। এবার ছবিটা বদলাতে পুরো দল বদ্ধপরিকর।