দুবরাজপুরের প্রার্থী বদলের ইঙ্গিত অনুব্রতর

117

কলকাতা: প্রার্থীতালিকা প্রকাশের পরই বীরভূমের দুবরাজপুরে তৃণমূলকর্মীদের ক্ষোভ প্রকাশ্যে আসে। দুবরাজপুরের তৃণমূল প্রার্থী অসীমা ধীবরের বিরুদ্ধে এলাকার তৃণমূলকর্মীরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। এবার ওই আসনে প্রার্থী বদলের সম্ভাবনা উসকে দিলেন জেলা তৃণমূলের সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। মঙ্গলবারই তিনি বোলপুরে মহিলা তৃণমূলের বৈঠক ডাকেন। সেখানে অসীমা ধীবরকেও ডাকা হয়। ওই বৈঠকেই অনুব্রত তাঁকে জানিয়ে দেন, আপাতত তিনি যেন প্রচারে না বের হন। প্রার্থী বদল করা হতে পারে বলে ইঙ্গিত দেন। এরপরই বীরভূম জেলা তৃণমূলে নতুন করে আলোড়ন পড়েছে। কয়েকদিন আগেই দলের তরফে জানানো হয়েছিল, দলের ২৯১টি আসনেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রার্থী বাছাই করেছেন। তাই প্রার্থী নিয়ে কোনও ক্ষোভপ্রকাশ বরদাস্ত করা যাবে না। কিন্তু দুবরাজপুরের কর্মীরা তা মানেননি। সেখানকার প্রার্থীর নাম জানার পরই তৃণমূলকর্মীরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। এই নিয়ে তাঁরা জেলা সভাপতির কাছে অভিযোগও জানান। এরপরই এদিন অনুব্রতবাবু প্রার্থী বদলের ইঙ্গিত দেন। উল্লেখ্য, বীরভূমের সবকটি কেন্দ্রে প্রার্থীদের দলীয় প্রতীক দিয়ে দেওয়া হলেও দুবরাজপুরের দলীয় প্রার্থীকে তা দেওয়া হয়নি। তখনই সেখানে প্রার্থী বদলের ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছিল।

অন্যদিকে, জয়পুরে দলীয় প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়ে যাওয়ায় ওই কেন্দ্রে নির্দল প্রার্থী দেবজ্যোতি সিংদেওকে সমর্থনের কথা জানিয়ে দিল তণমূল। এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় পুরুলিয়া সফরে গিয়ে এই কথা জানান। এই কেন্দ্রে তণমূল উজ্জ্বল কুমারকে প্রার্থী করেছিল। কিন্তু তাঁর মনোনয়ন বাতিল হয়ে যায়। এই আসনে দলীয় প্রার্থী না থাকায় তৃণমূল কিছুটা বিপাকে পড়ে। এই অবস্থায় দলের বিক্ষুব্ধ কর্মী দেবজ্যোতি সিংদেওকে তৃণমূল সমর্থন করায় এই আসনে বিজেপি ওয়াকওভার পেল না।

- Advertisement -