ফালাকাটা,৩ অক্টোবরঃ আলিপুরদুয়ারের প্রাক্তন জেলা শাসকের স্ত্রী নন্দিনী কৃষ্ণানকে অশ্লীল মেসেজ পাঠানোয় নাম জড়িয়েছিল বিনোদ সরকারের। ঘটনায় ফালাকাটা থানায় পুলিশ হেফাজতেই বিনোদকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠেছিল তৎকালীন জেলা শাসক নিখিল নির্মল ও তার স্ত্রীর বিরূদ্ধে। ওই মারধরের ভিডিও ভাইরাল হতেই দেশজুড়ে ব্যাপক তোলপার হয়। ঘটনার জেরে অপসারিত হন ওই জেলাশাসক। এবার স্থানীয় মহিলা ও স্কুল ছাত্রীদের অশ্লীল মেসেজ পাঠানো, উত্যক্ত করা ও কুপ্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার হল সেই বিনোদ।
গত ২৬ সেপ্টেম্বর এব্যাপারে ফালাকাটা থানায় বিনোদের বিরূদ্ধে গন অভিযোগ পত্র জমা দিয়েছিলেন এলাকার বাসিন্দারাই। দ্বাদশ শ্রেণীর স্কুল পড়ুয়াকে উত্যক্ত ও কুপ্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ তুলে বিনোদের বিরূদ্ধে ফালাকাটা থানায় পৃথক ভাবে আরো একটি লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছেন যুবরাজ সরকার নামে এক অভিভাবকও। এদিকে যুবরাজ সরকার নামে ওই ব্যাক্তি সহ মোট ৬ জনের বিরূদ্ধে ফালাকাটা থানায় মারধরের পালটা একটি অভিযোগও জমা দিয়েছিল বিনোদ সরকারও। বিনোদ অবশ্য তার বিরূদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ সাজানো ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করে। অভিযোগ পেয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করে ফালাকাটা থানার পুলিশ।
বৃহস্পতিবার রাতে ফালাকাটা থানার পুলিশ তাকে বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। এদিনই তাকে আলিপুরদুয়ার আদালতে চালান করে পুলিশ। তবে স্পেশাল কোর্টের বিচারক ছুটিতে থাকায় তার জামিন মেলেনি। আদালতের নির্দেশে তাকে জেল হেফাজতে পাঠানো হয়েছে বলে সরকারি আইনজীবি সুদীপ ভৌমিক জানিয়েছেন।