কোচবিহার, ৬ অগাস্ট: তুফানগঞ্জে এক ভুয়ো চিকিৎসককে গ্রেফতারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, তুফানগঞ্জ-১ ব্লকের ধলপল-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত জিগাতলায় সম্প্রতি নুর ইসলাম নামে এক ব্যক্তি চিকিৎসা পরিসেবা দেওয়া শুরু করেন। সোমবার ভিজিট নিয়ে ৩৫ জনের কাছ থেকে ২৫০ টাকা করে দিয়ে দন্ত চিকিৎসা করেন নুর ইসলাম। মঙ্গলবার সকাল থেকে তিনি চোখ পরীক্ষার জন্য রোগী দেখা শুরু করেন। সেই সময় স্থানীয় বাসিন্দাদের সন্দেহ হলে খবর দেওয়া হয় তুফানগঞ্জ থানায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখতে পায় ওই ব্যক্তির কোনো সার্টিফিকেট বা ডিগ্রী নেই। এমনকি সেবিষয়টি তিনি স্বীকারও করে নেন। এরপরই অভিযুক্ত নূর ইসলাম ও তার দুই সহকারি সালাম মিয়া, আজিবর রহমান ও যে বাড়িতে তিনি চিকিৎসা করছিলেন সেই বাড়ির মালিককে গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে প্রায় ১০০টি চশমা, কয়েকশো দাঁত ও অন্যান্য ওষুধ পত্র উদ্ধার হয়। অভিযুক্ত নূর ইসলাম বলেন, ‘আমার কাছে কোনো ডিগ্রী নেই। কিন্তু চিকিৎসকদের সাথে কাজ করে চিকিৎসা দেওয়ার বিষয়টি শিখেছি। তাই স্বল্প পারিশ্রমিকে মানুষকে পরিসেবা দেওয়ার জন্য ক্লিনিক খুলেছিলাম।’ তুফানগঞ্জ থানার পুলিশ জানিয়েছে, তারা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।