নাবালিকার শ্লীলতাহানির অভিযোগে গ্রেপ্তার প্রৌঢ়

302

বর্ধমান: বিস্কুট দেবার লোভ দেখিয়ে এক নাবালিকাকে বাড়িতে নিয়ে গিয়ে শ্লীলতাহানি করার অভিযোগে প্রৌঢ়কে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। ধৃতের নাম গৌরমোহন দাস। বাড়ি পূর্ব বর্ধমানের ভাতার থানার কর্জনা গ্রামে। নাবালিকার বাবার দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে ভাতার থানার পুলিশ মঙ্গলবার রাতে গৌরমোহনকে গ্রেপ্তার করে। সুনির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে পুলিশ বুধবার ধৃতকে বর্ধমান আদালতে পেশ করলে বিচারক ধৃতের জামিন নামাঞ্জুর করেন এবং বিচার বিভাগীয় হেপাজতে পাঠিয়ে ১৮ নভেম্বর পক্সো আদালতে পেশের নির্দেশ দিয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ছয় বছর বয়সী নাবালিকার পরিবারের বসবাস কর্জনা গ্রামে। এই গ্রামের একই পাড়ায় বসবাস করেন বছর ৫৮ বয়সী গৌরমোহন দাস। তিনি বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঘুরে হরিনাম সংকর্তীর্ণ করেন। সেই কারণে নাবালিকার পরিবার সহ এলাকার লোকজন তাঁকে শ্রদ্ধার চোখেই দেখতেন। কিন্তু গৌরমোহন প্রতিবেশী পরিবারের নাবালিকার সঙ্গে এমন আচরন করায় হতবাক কর্জনা গ্রামের বাসিন্দারা।

- Advertisement -

নাবালিকার বাবা পুলিশকে জানিয়েছেন, তাঁরা গৌরমোহনকে ভালো মানুষ বলেই মনে করতেন। সেই কারণে তাঁদের বাড়িতে গৌরমোহনের যাতায়াত ছিল। এদিন নাবালিকার বাবা আরও জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিস্কুট দেবার লোভ দেখিয়ে তাঁর নাবালিকা মেয়েকে গৌরমোহন নিজের বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। দীর্ঘক্ষন মেয়ে বাড়ি না ফেরার নাবালিকার বাবা গৌরমোহনের বাড়িতে যান। তখন তিনি দেখেন তাঁর নাবালিকা মেয়ের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় রয়েছে গৌরমোহন।

এরপরই মেয়েকে বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে গিয়ে মঙ্গলবার রাতেই গৌরমোহনের বিরুদ্ধে ভাতার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন নাবালিকার বাবা। অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন নাবালিকার পরিবার।