বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি গবেষণায় আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই)-এর কদর বাড়তে বাড়তে এখন তা যুদ্ধক্ষেত্রে পৌঁছতে চলেছে। মার্কিন সেনাবাহিনী যুদ্ধে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করতে চায়। গোয়েন্দা কার্যকলাপ থেকে শুরু করে বিমান ও জাহাজের রক্ষণাবেক্ষণ সব কাজেই তারা এআই প্রযুক্তি ব্যবহার করতে চায়। মার্কিন প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করে পেন্টাগন তাদের রিপোর্টে বলেছে, সামরিক ক্ষেত্রে এআই ব্যবহারের জন্য চিন ও রাশিয়া বিপুল অর্থ বিনিয়োগ করছে। এমন কিছু ক্ষেত্রে ওই দুই দেশ এ আই ব্যবহারের পরিকল্পনা নিয়েছে যেখানে আন্তর্জাতিক রীতিনীতি ও মানবাধিকার নিয়ে প্রশ্ন উঠতে পারে। সম্প্রতি রাষ্ট্রসংঘ ‘কিলার রোবট’ তৈরির উপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করার চেষ্টা করেছিল। কিলার রোবট এমন একটি যুদ্ধাস্ত্র যা মানুষের সাহায্য ছাড়াই যুদ্ধক্ষেত্রে শত্রুর মোকাবিলা করতে পারবে। কিন্তু কিলার রোবট নিয়ে আলোচনা সামনে আসতেই নৈতিকতার কথাও আসছে।