চোরের প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে বাইক খোয়ালেন যুবক! লিখিত অভিযোগ দায়ের থানায়

320

ঘোকষাডাঙা: অনলাইন মাধ্যমে বাইক বিক্রি করতে গিয়ে চোরের খপ্পরে পড়লেন এক যুবক। খোয়ালেন বাইক। এমতবস্থায় পুলিশের দ্বারস্থ ওই যুবক। বাইক চুরির ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেন থানায়। লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। যদিও এখনও অবধি চোরের টিকির নাগাল পায়নি পুলিশ। তবে, তদন্তকারী পুলিশ কর্তারা জানিয়েছেন দ্রুত পুলিশি হেপাজতে হবে ওই যুবক। উদ্ধার হবে খোয়া যাওয়া বাইক।

যে কোনও চলচ্চিত্রের খন্ড চিত্রকেও হার মানাবে মাথাভাঙা-২ নম্বর ব্লকের ঘোকসাডাঙ্গার বাইক চুরির ঘটনা। জানা গিয়েছে, মেখলিগঞ্জের কামাত চ্যাংরাবান্ধা এলাকার বাসিন্দা অরুণ বিশ্বাস সম্প্রতি তাঁর বাইক বিক্রির বিজ্ঞাপন তুলে ধরেন অনলাইন মাধ্যমে। সেই বিজ্ঞাপনের সূত্র ধরেই মোবাইল ফোন মারফৎ ক্রেতার বেশে যোগাযোগ করে বাইক চোর। ফোন মাধ্যমে জানায় বাইকটি খুব পছন্দ হয়েছে। সে বাইকটি কিনতে চায়। এরপরেই চোরের কথা মোতাবেক বাইক নিয়ে ঘোকষাডাঙার হিমঘর চৌপথি এলাকায় পৌঁছোন অরুণ বিশ্বাস। সেখানে ক্রেতার বেশে উপস্থিত চোর জানায়, বাইক বেশ পছন্দ হয়েছে। এক মূহুর্ত সময় নষ্ট না করে অরুণবাবুকে চোরের প্রস্তাব, ‘বাইকটি একটু চালিয়ে দেখতে চাই।’ সাদা মনে চোরের প্রস্তাবে সায় দিয়ে বসেন অরুণবাবু। স্বেচ্ছায় বাইকের চাবি তুলে দেন ‘ট্রায়াল রান’-এর জন্য। ট্রায়াল রানে বাইক মালিকের অনুমতি মিলতেই একছুট চোরের। মূহুর্তেই স্বপ্ন ভঙ্গ হয় অরুণের।

- Advertisement -

ট্রায়াল রানের বাহানায় চোর বাইক নিয়ে চম্পট দেওয়ার পর ঘড়ির কাটা মিনিটের ঘর পেড়িয়ে ঘণ্টার ছুলেও চোরের দর্শন মেলে না। বাধ্য হয়ে ডায়াল লিস্টে থাকা ফোন নম্বরের সূত্র ধরে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। যদিও ততক্ষণে ফোন সুইচড অফ। এরপরেই ঘোকষাডাঙ্গা পুলিশের দ্বারস্থ হন অরুণবাবু। দায়ের করেন লিখিত অভিযোগ।

থানা সূত্রে খবর, অভিযোগ জমা পড়েছে। গোটা ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।