মিঠুনের দল ছাড়ার কারণ তিনিই বলতে পারবেন: অরূপ রায়

95

রামপুরহাট: মানুষ রাজনীতি করতে আসেন দুটি কারণে। এক আদর্শগত কারণে, দ্বিতীয় কিছু পাবেন ভেবে। আর কেউ কেউ রাজনীতিটাকে ব্যবসায় পরিণত করতে চায়। যখন দেখে দল তাঁদের স্বরূপ ধরে ফেলেছে, তখন তাঁরা দল পরিবর্তন করে। তারাপীঠে পুজো দিয়ে মিঠুন চক্রবর্তী সহ দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে এমনই মন্তব্য করলেন প্রাক্তন মন্ত্রী, মধ্য হাওড়া কেন্দ্রের বিদায়ী বিধায়ক অরূপ রায়।

মঙ্গলবার তারাপীঠে পুজো দিতে আসেন অরূপ রায়। পুজো দেওয়ার পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মমতা ফের তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হবেন বলে দাবি করেন তিনি। দলের ভাঙন এবং একের পর এক দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান স্বার্থের জন্য বলে মনে করেন তিনি। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে বৈশালী ডালমিয়া কিংবা মিঠুন চক্রবর্তীদের দলত্যাগ প্রসঙ্গে অরূপবাবু জানান, রাজনীতিতে যাঁরা আসেন তাঁরা নীতি আদর্শ নিয়ে আসেন। এখন টিকিট না পেয়ে বাহানা করে দল ছাড়ছেন। মিঠুন চক্রবর্তীর প্রসঙ্গে তিনি জানান, তাঁর সঙ্গে ব্যক্তিগত সম্পর্ক ভালো ছিল। কিন্তু কেন উনি দলত্যাগ করলেন উনিই বলতে পারবেন। তাঁর বক্তব্য, জটু লাহিড়ীকে চারবার বিধানসভার টিকিট দেওয়া হয়েছিল। একবার হাওড়া কর্পোরেশনের টিকিট দেওয়া হয়েছিল। এখন তাঁর ৮৮ বছর বয়স। করোনার কারণে দল সিদ্ধান্ত নিয়েছে ৮০ বছরের উর্ধ্বে কাউকে প্রার্থী করা হবে না। এই কারণে তাঁকে টিকিট দেওয়া হয়নি। তবে তাঁদের সম্মানজনক জায়গায় রাখার কথা বলা হয়েছিল। তারপরও তাঁদের নীতি আদর্শ বিসর্জন দিয়ে কিভাবে একটা সাম্প্রদায়িক দলে যোগ দেয় এটা লজ্জাজনক। যারা নিজের স্বার্থে অন্য দলে যায় তাঁদের মানুষ কখনও ক্ষমা করে না। মানুষ একটা নীতিবান, আদর্শবান মানুষকে পছন্দ করে। অরূপবাবুর দাবি, নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই জিতবেন। আগামী পাঁচ বছর নয়। মমতা চাইলে ২৫ বছর মুখ্যমন্ত্রী পদে থাকবেন।

- Advertisement -