মারপিটের ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়ার অভিযোগ

133

গয়েরকাটা, ৯ ফেব্রুয়ারিঃ এশিয়ান হাইওয়ে ৪৮ এর পাশে একটি জায়গার দখলের সত্ত্বকে কেন্দ্র করে ২০১৭ সাল থেকে চলছিল দুই পরিবারের বিবাদ। পরে, সেই বিবাদ আদালত পর্যন্ত গড়ায়। সেই জমিতে সম্প্রতি ঘর সংস্কারের কাজ শুরু করেন বিচিত্রা দেবনাথ কুজুর নামে গয়েরকাটার এক বাসিন্দার পরিবার। অভিযোগ, যাঁদের সাথে এই জমির দখলের সত্ত্ব নিয়ে আইনি লড়াই চলছে, সেই পরিবারের সদস্য তপন ঢালী গত শনিবার বিচিত্রা দেবনাথের বাড়িতে গিয়ে তাঁর ওপর হামলা চালান। বানারহাট থানায় লিখিত বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ জানান বিচিত্রা দেবী।

অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়ায় প্রশ্ন উঠেছে। সোমবার সন্ধ্যায় বিষয়টি নিয়ে প্রায় ৪৫ মিনিট এশিয়ান হাইওয়ে ৪৮ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান বিচিত্রা দেবনাথ কুজুর ও পেশায় ধূপগুড়ি ব্লক অফিসের কর্মী তথা তাঁর দিদি সুচিত্রা দেবনাথ দত্ত সহ স্থানীয়দের একাংশ। শনিবারের ঘটনা উল্লেখ করে সুচিত্রা দেবীর বিরুদ্ধে তপন ঢালীর পরিবারের তরফেও থানায় পালটা অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

- Advertisement -

সুচিত্রা দেবনাথ দত্ত বলেন, আমার বোনের ভাগের একটি জমির দখল সত্ত্ব নিয়ে শ্যাল লাল ঢালীর পরিবারের সাথে আইনি লড়াই চলছিল। সেখানে কিছুদিন আগে, আমরা বোন ঘর তৈরি করতে গেলে ঢালী পরিবারের ছেলে তপন ঢালী এসে আমার বোনের ওপর হামলা চালায়। সে সময় আমার বোনের স্বামী বাড়িতে ছিল না। ঘটনার সাথে আমার কোনও যোগ নেই। সেই সময় আমি দপ্তরের কাজে ছিলাম। অথচ, তৃণমূল নেত্রী সীমা চৌধুরীর প্ররোচনায় ইচ্ছাকৃতভাবে ব্যক্তিগত শত্রুতার জেরে আমার নামে থানায় অভিযোগ জানিয়ে, আমাকে ফাঁসানোর চেষ্টা চলছে। পুলিশ আমার বোনের অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যবস্থা না নেওয়ায় পথ অবরোধ করতে সামিল হয়েছিলাম।

এই ঘটনায় সীমা চৌধুরী জানান, আমি অসুস্থ থাকায় দলের মিটিংয়ে যেতে পারছি না। যা অভিযোগ তোলা হয়েছে, সেই বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা। অযথা আমার নাম জড়ানো হচ্ছে। তপন ঢালীর পরিবারের পক্ষে শিখা ঢালী বলেন, সেদিন আমরা দেখি সংশ্লিষ্ট ওই জমিতে প্রাচীর তোলা হচ্ছে। আমরা জিজ্ঞেস করতে গেলে, সুচিত্রা দেবনাথ আমার ওপর বাটাম দিয়ে হামলা চালায়। থানায় অভিযোগ জানিয়েছি কিন্তু, পুলিশের তরফে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। আজ দোষীরাই পথ অবরোধ করেন। বানারহাট থানার আইসি এই ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি।