অসম-বাংলা সীমানার গলিপথ সিল ব্লক প্রশাসনের

225

বক্সিরহাট: করোনার তৃতীয় ঢেউ ঠেকাতে অসম-বাংলা সীমানা সিল করল ব্লক প্রশাসন। মঙ্গলবার তুফানগঞ্জ-২ ব্লক প্রশাসনের তরফে বালাকুঠি, শিলঘাগুড়ি, মানসাই, দেবগ্রাম প্রভৃতি এলাকার গলিপথগুলি বাঁশ বেঁধে সিল করে দেওয়া হল। করোনার জন্য মে মাসে বক্সিরহাট থানা এলাকা তথা তুফানগঞ্জ-২ ব্লকের সঙ্গে অসমের ধুবরি জেলার ছোটগুমার সঙ্গে বক্সিরহাট পুরোনো পোস্ট অফিস পাড়া ও বাজার সংলগ্ন মারোয়ারি পট্টির দুটি প্রধান সড়ক অসম প্রশাসনের তরফে সিল করে দেওয়া হয়েছিল। এছাড়াও অসমের ছাগলিয়ার সঙ্গে বাংলার বালাকুটি জোড়াইমোড় সীমানায় জাতীয় সড়কে নাকা চেকিং বসানো হয়েছিল। সেখানে যাতায়াতকারী পথচারীদের করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করেছিল দুই রাজ্যের প্রশাসন। ফলে করোনা পরীক্ষা এরাতে অসম-বাংলা সীমানার বাকি গলিপথগুলি দিয়ে অনেকেই যাতায়াত করত।

তুফানগঞ্জ-২ এর বিডিও প্রসেনজিৎ কুন্ডু জানান, এতদিন স্থানীয়রাই শুধু এই পথগুলি দিয়ে যাতায়াত করত। কিন্তু করোনা পরীক্ষা এড়াতে সম্প্রতি অসম সহ উত্তরপূর্ব ভারতের রাজ্যগুলির মানুষেরা এই পথে যাতায়াত শুরু করে। তা আটকাতেই গলিপথগুলি সিল করে দেওয়া হল। করোনার তৃতীয় ঢেউ আটকাতে ব্লক এলাকার মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে প্রচারাভিযান চালানো হচ্ছে। পাশাপাশি, করোনার বিধিনিষেধ ঠিকমতো পালন করা হচ্ছে কিনা তা দেখতে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। বর্তমানে অসম-বাংলা সীমানার জাতীয় সড়কে নাকা চেকিংয়ে অসম থেকে আগত প্রতিটি যাত্রীর করোনা র‍্যাপিড টেস্ট বাধ্যতামূলক। পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ হলেই বাংলায় প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে।

- Advertisement -