NEET উত্তীর্ণ দুঃস্থ পড়ুয়াকে আর্থিক সাহায্যের আশ্বাস

1697

হলদিবাড়ি: দিনমজুর NEET উত্তীর্ণ পড়ুয়াকে আর্থিক সাহায্যের আশ্বাস দিলেন পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব ও স্থানীয় বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান। ইতিমধ্যে হলদিবাড়ি ব্লকের হেমকুমারী গ্রাম পঞ্চায়েতের বামন পাড়ার দুঃস্থ পড়ুয়া খোকন রায়ের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান ও পর্যটন মন্ত্রীর আপ্ত সহায়ক। তাদের সঙ্গে ফোনালাপে আর্থিক সাহায্যের আশ্বাস পেয়ে খুশি খোকন রায়ের বাবা সর্বেশ্বর রায়।

বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী বামন পাড়ার বাসিন্দা খোকন রায়ের বাবা সর্বেশ্বর রায় পেশায় ভ্যান চালক। পাশাপাশি তিনি অন্যের জমিতে কৃষি শ্রমিকের কাজ করেন। মা কণিকা রায় সংসারের হাল ধরতে স্বামীর সঙ্গে অন্যের জমিতে দিনমজুরের কাজ করেন। খোকনও বাবা-মা’র সঙ্গে অন্যের জমিতে দিনমজুরের কাজ করে নিজের পড়াশোনার খরচের যোগান দেয়। পরিবারিক আর্থিক অনটন থাকলেও অদম্য ইচ্ছাশক্তির জোরে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় সাফল্য অর্জন করে। এরপর বাবা মার ইচ্ছে পূরণ করতে সর্বভারতীয় ডাক্তারি প্রবেশিকা পরীক্ষায় নিট(NEET)-এর জন্য প্রস্তুতি শুরু করে।
খোকন চলতি বছর ১৩ সেপ্টেম্বর নিট পরীক্ষায় বসেন। গত ১৬ অক্টোবর নিট পরীক্ষার ফল প্রকাশে তিনি ৯১ হাজার ৯৮১ স্থান অধিকার করে। এসসি ক্যাটাগরিতে ৩ হাজার ৯৭৩ স্থানাধিকার করেন। এরপর গত ১৩ নভেম্বর অনলাইনে কাউন্সিলিং হয়। ১৬ নভেম্বর উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে তার সিট আলটম্যান্ট হওয়ার খবর জানানো হয়।

- Advertisement -

এ বিষয়ে গত বৃহস্পতিবার উত্তরবঙ্গ সংবাদের প্রথম পাতায় “কঠিন লড়াই করে ডাক্তারি পড়তে যাচ্ছেন দিনমজুর খোকন” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়। সেই খবর দেখে রাজ্য সরকারের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেবের আপ্ত সহায়ক ফোন মারফত খোকনের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি মেডিকেল কলেজের ভর্তির খরচ ও হস্টেল খরচ বহন করার প্রতিশ্রুতি দেন। অন্যদিকে, মেখলিগঞ্জের বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান খোকনকে আর্থিক সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন। ছেলের ডাক্তারি পড়াশোনার জন্য খরচের আশ্বাস পেয়ে খুশি সর্বেশ্বর রায়। তিনি মন্ত্রী ও স্থানীয় বিধায়ক সহ উত্তরবঙ্গ সংবাদ কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান। এদিকে এদিন খোকনের বাড়ি গিয়ে তাকে ফুলের তোড়া দিয়ে সংবর্ধনা জানান হলদিবাড়ি শহরের বিশিষ্ট খেলোয়াড় বুম্বা ঘোষ ও স্থানীয় সহকারী অধ্যাপক দিলীপ হাজরা।