পুলিশ সুপারের অফিসে আত্মহত্যা করার হুঁশিয়ারি, জানুন কেন?  

177

বর্ধমান: ‘প্রতিবেশী তৃণমূল কর্মীর অত্যাচার বন্ধ না হলে আত্মহত্যা করবো।‘ পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ সুপারের অফিসে গিয়ে সোমবার এমনই হুঁশিয়ারি দিলেন বর্ধমানের নীলপুরের এক মহিলা। যা নিয়ে শোরগোল পড়ে যেতেই  নড়ে চড়ে বসেন পুলিশকর্তারা। পুলিশ সুপারের অফিস থেকে নির্দেশ পেয়ে অভিযোগকারিনীর এলাকায় যায় বর্ধমান থানার পুলিশ। মহিলার অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে বলে আশ্বস্তও করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্ধমান শহরের ১২ নম্বর ওয়ার্ডের বড়নীলপুর শান্তিপাড়া এলাকায় বাসিন্দা দীপালি দাস। দীর্ঘদিন ধরে দুই নাবালিকা মেয়েকে নিয়ে বসবাস করছেন সেখানে। কয়েকবছর আগে তার স্বামী মারা যান। অন‍্যের বাড়িতে কাজ করে দীপালিদেবী সংসার চালান। তার অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেস তৃতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর তাঁর উপর অত‍্যাচার চালাচ্ছে পাশের বাড়ির পুরসভার কর্মী মৌসুমী সরকার ও স্বামী সঞ্জীব সরকার। এলাকার তৃণমূল নেতাদের মদতেই এই অত্যাচার চলছে বলে জানা গিয়েছে। তাকে বাড়ি থেকে উৎখাত করার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এইনিয়ে সোমবার পুলিশ সুপারের অফিসে যান দীপালি দেবী।

- Advertisement -

এই ঘটনা নিয়ে শোরগোল হতেই পুলিশ সুপারের অফিস থেকে নির্দেশ যায় বর্ধমান  থানায়। তারপরেই ওই মহিলার বাড়িতে বর্ধমান থানার পুলিশ ।  দুপক্ষের সাথে কথা বলে পুলিশ পরিস্থিতি সামাল দেয় । অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কল‍্যাণ সিংহ  রায় বলেন, ‘বিষয়টি আমরা  তদন্ত করে দেখছি। এই ধরণের কোনো ঘটনা ঘটে থাকলে পুলিশ সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবে’।