সমর্থকদের পাশে থাকার জন্য আবেদন প্রীতমদের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : গত মরশুমের মত এবারও সেমিফাইনালের দরজা সহজে খুলে ফেললেও লিগ শীর্ষে থেকে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের রাস্তা আর খোলা হল না এটিকে মোহনবাগানের। তার জন্য অবশ্য সমর্থকদের কাছে ভুল স্বীকার করে নিয়ে পাশে থাকতে বলছেন দলের কোচ-ফুটবলাররা।

তীরে এসে তরী ডোবার জন্য নিজেদেরই দায়ী করছেন প্রীতম কোটালরা। গত ম্যাচে তিনি নয়, শুরুতে দলের অধিনায়ক ছিলেন সন্দেশ ঝিঙ্ঘান। তবে মাত্র ১৮ মিনিটের মাথায় চোট পেয়ে তিনি বসে যেতে প্রীতমের হাতেই ওঠে অধিনায়কের আর্ম ব্যান্ড। ম্যাচের পরেও হতাশ এবং বিদ্ধস্ত কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাস নয়, সংবাদমাধ্যমের সামনে এগিয়ে দেওয়া হল তাঁকেই। তিনি নিজেদের দোষ স্বীকার করে বলে দেন, যে ভাবে আমরা ওদের দুটো গোল উপহার দিলাম তাতে নিজেদের দোষ ছাড়া আর কিছুই দেখছি না। কিছু করার নেই। এরকম হয়ে থাকে। তবে ম্যাচটা জিততে না পারলেও আমরা নিজেদের একশো শতাংশ দিয়েছি ম্যাচে।

- Advertisement -

লিগ শিল্ড জয়ী না হতে পারলেও আপাতত সেমিফাইনাল জিতে যে ফাইনাল খেলাই প্রধান লক্ষ্য সেকথাও জানান তিনি, এখন আমাদের সামনে সেমিফাইনাল ম্যাচ রয়েছে। পরবর্তী লক্ষ্য ওই ম্যাচ জেতা। তারপর ফাইনাল খেলা। খারাপ লাগছে যে এত কাছে এসেও এরকম একটা ভালো সুযোগ আমরা হারালাম। এখান থেকেই শিক্ষা নিয়ে পরের ধাপে যেতে হবে। নিজেদের ভুলত্রুটি শোধরাতে হবে। যাতে পরেরবার যখন এই সুযোগ আসবে তখনও যাতে সেটা হাতছাড়া না হয়, সেটাও আমাদের মাথায় রাখতে হবে।

আপাতত প্রথম দফার সেমিফাইনাল নর্থ ইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে ব্যাম্বোলিমের জিএমসি গ্রাউন্ডে। খালিদ জামিলের কোচিং এই প্রথমবার উত্তর-পূর্ব ভারতের এই দলকে অপ্রতিরোধ্য দেখাচ্ছে। ফলে হাবাস এবং কোংয়ের দুশ্চিন্তা থাকা স্বাভাবিক। তবু অবশ্য প্রকাশ্যে নিজেদের চিন্তা আনতে দিতে রাজি নন প্রীতমরা। বরং চ্যাম্পিয়ন হওয়ার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাস দেখাচ্ছেন তাঁরা। দলের সবথেকে সিনিয়র ফুটবলার বলে দিলেন, এখন আমাদের একটাই লক্ষ্য ট্রফি জেতা। আমরা আত্মবিশ্বাসী যে সেটা পারব। যে ভুলগুলো করেছি সেসব আর যাতে পরের ম্যাচে না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। সমর্থকদের বলব, এই সময়ে আপনাদের পাশে চাই। যাই হোক না কেন, দলের পাশে থাকুন। আপনারা পাশে থাকলে আমরা ঘুরে দাঁড়াবোই।

৫ মার্চ মুম্বই-গোয়া মুখোমুখি হবে এবং পরদিন নর্থ ইস্টের বিরুদ্ধে খেলবে এটিকে মোহনবাগান। প্রীতমদের দ্বিতীয় দফার ম্যাচ ৯ মার্চ। এদিকে, গত মরশুমে আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুবাদে এবার এএফসি কাপে সরাসরি খেলবে এটিকে মোহনবাগান। গ্রুপ ডি-র এই ম্যাচগুলো আয়োজন করার জন্য আবেদন করলেও শেষপর্যন্ত ম্যাচগুলি হচ্ছে মালদ্বীপের মালেতে। এই গ্রুপে এটিকে মোহনবাগান ছাড়াও রয়েছে বাংলাদেশের বসুন্ধরা কিংস, মালদ্বীপের মেজিয়া স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েন ক্লাব। চতুর্থ দল হবে সাউথ জোনের প্লে অফ জয়ী দল। যে প্লে অফ খেলবে বেঙ্গালুরু এফসিও।