লিগে রেফারিং নিয়ে এবার সরব হাবাস

সুস্মিতা গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: রেফারিং নিয়ে বাকি কোচেদের মতোই এবার সরব আন্তোনিও লোপেজ হাবাস। নর্থইস্ট ইউনাইটেড ম্যাচের হারের যন্ত্রনা থেকেই বারবার উঠে আসছে খারাপ রেফারিংয়ের কথা। শুধুই রেফারির দিকে অভিযোগের তীর তাক করে থেমে না থেকে, কিবু ভিকুনার দলকে হারাতে যা যা করা দরকার তার জন্য তৈরি হচ্ছেন মেরিনার্সরা।

রবিবার কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে ফিরতি ম্যাচে এডু গার্সিয়া, শুভাশিস বসুর মতোই সম্ভবত নেই ডেভিড উইলিয়ামসও। তিনি রিকভারি সেশনে আছেন। রবিবার সকালে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানালেন হাবাস। সেক্ষেত্রে শিঁকে ছিড়তে পারে সদ্য দলে যোগ দেওয়া মার্সেলিনহো লেইতের। আইএসএলের অভিজ্ঞ এই স্ট্রাইকার গোল চেনেন। ফলে যতই খেলার মধ্যে না থাকুন, রয় কৃষ্ণাকে যোগ্য সহায়তা করতে তিনিই পারবেন বলে মনে করা হচ্ছে। ভালো খেলতে শুরু করা কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে আক্রমনাত্মক ফুটবলই সেরা অস্ত্র হতে পারে বাগানের। আর তার জন্য এরকম জুটিই দরকার হাবাসের।

- Advertisement -

তালিকার ৯ নম্বরে থাকা কেরালা ব্লাস্টার্সকে প্রচুর নম্বর দিয়ে তিনি এদিন অবশ্য বিনয়ী হয়ে রইলেন। বললেন, দূর্দান্ত প্রতিপক্ষ কেরালা ব্লাস্টার্স। শেষ ম্যাচটা ওরা জিততেই পারত। ওদের বিরুদ্ধে জিততে গেলে আমাদের প্রচুর পরিশ্রম, বুদ্ধি প্রয়োগ এবং শৃঙ্খলা দেখাতে হবে। প্রচুর উন্নতি করেছে ওদের দলটা।

এই বিনয়ের ছিটেফোটাও ধরা পড়ল না রেফারিং প্রসঙ্গ উঠতে। বেশ ঝাঁঝের সঙ্গে জানালেন, বলতে পারেন কিছু রেফারি আমাদের জন্য দূর্ভাগ্য বয়ে নিয়ে আসছেন। আগের ম্যাচটায় আমরা গোলটা খেলাম পরিষ্কার ফাউল থেকে। এরপর রয় কৃষ্ণাকে ধাক্কা দেওয়ার পরেও পেনাল্টি পেলাম না, একটা অফসাইডের জন্য গোল বাতিল হল। আমার বক্তব্য হল, একজন রেফারি ম্যাচে একটা ভুল করতে পারেন। কিন্তু তিন তিনটি ভুল?

প্রথম দফার পরে এটিকে মোহনবাগান প্রচুর উন্নতি করেছে বলে হাবাস দাবি করলেও জয় এবং গোলের হিসাব অবশ্য তেমনকিছু বলছে না। বরং রীতিমত খোঁড়ানো শুরু করেছে মেরিনার্সরা। আর তার ফয়দা এবার কিবু ভিকুনা তুলতে পারেন কি না সেদিকে এখন আবার তাকিয়ে বহু বাগান সমর্থকই। যাঁদের চোখে এই স্প্যানিশ কোচ এখনও ভগবান। সঞ্জীব গোয়েঙ্কাদের বিরুদ্ধে বিতৃষ্ণা থেকেই অবশ্য তাঁর প্রতি ভালোবাসা আরও বেড়েছে।

মজার কথা হল, শুধুই সমর্থকরা নন। এখন হাবাসের আলট্রা ডিফেন্সিভ ফুটবল নিয়ে বিরক্ত এমনকিছু কর্তা, যাঁরা গত মরশুমে এটিকেতে ফিরিয়ে এনেছিলেন এই চ্যাম্পিয়ন কোচকে। তাই গ্রুপ লিগ শীর্ষে বা নিদেনপক্ষে চ্যাম্পিয়ন না হতে পারলে সম্ভবত ফের হাবাস বিদায় হচ্ছে। সেক্ষেত্রে ভিকুনা ফিরে আসবেন কি না সেটা সময়ই বলবে।

তবে সেটা করতে গেলে যে ব্লাস্টার্সকে আরও কিছুটা ভালো জায়গায় নিয়ে যেতে হবে এটা জানেন ভিকুনা। নিজের দল সম্পর্কেই তাই তাঁর আপাতত যাবতীয় ভাবনা। টানা পাঁচ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর নিশ্চিতভাবেই চাইবেন গত ২০ নভেম্বরের সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে মোহনবাগানে না রাখার শোধটাও তুলতে।

সেই ম্যাচের কথা মাথায় রেখে বিশ্লেষন ভিকুনার, সেদিন সামান্য একটা ভুলে গোলটা খেয়ে ম্যাচটা হারি। এখনও চ্যালেঞ্জটা কঠিন। ওরা লিগের দ্বিতীয়স্থানে থাকা দল। তাই আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। রবিবার এই মাসের আট নম্বর ম্যাচ খেললেও নিজের দলের পারফরমেন্স নিয়ে আত্মবিশ্বাসী ব্লাস্টার্স কোচ।