মানিকচকের কংগ্রেস প্রার্থীর ওপর হামলার অভিযোগ

178

মানিকচক: ভোট মরশুমে একের পর এক রাজনৈতিক সংঘর্ষের ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠছে উত্তরবঙ্গ। মালদা জেলায় মানিকচক বিধানসভার কংগ্রেস প্রার্থী তথা বিদায়ি বিধায়ক মোত্তাকিন আলমের ওপর হামলার অভিযোগ উঠল। রবিবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে মানিকচক বিধানসভার অন্তর্গত ইংরেজবাজারের নঘড়িয়া গ্রামে। কর্মী বৈঠক সেরে ফেরার পথে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি, বিধায়কের সঙ্গে থাকা দক্ষিণ মালদার সাংসদ ডালুবাবুর গাড়িতেও হামলার চেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ। হামলাকারীদের অনেকের হাতেই তৃণমূলের পতাকা ছিল বলে অভিযোগ কংগ্রেস প্রার্থী মোত্তাকিন আলম এবং ডালুবাবুর। যদিও তৃণমূলের তরফে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। তৃণমূল ব্লক সভাপতি তথা প্রার্থী সাবিত্রী মিত্রর দাবি, মানুষের সহানুভূতি আদায়ের জন্য এটা কংগ্রেসের সাজানো ঘটনা।

কংগ্রেস বিধায়ক মোত্তাকিন আলমের অভিযোগ, ‘আমরা এদিন দুপুরে নঘড়িয়ায় কর্মী বৈঠক করে ফেরার পথে বিনা প্ররোচনায় আমাদের ওপর হামলা চালায় তৃণমূল বাহিনী। আমাকে গাড়ি থেকে টেনে বার করে প্রাণে মারার চেষ্টা করা হয়। ডালুবাবুর গাড়িতে হামলা চালানো হয়। নিরাপত্তারক্ষীরা আমাদের উদ্ধার করেন। কিন্তু কাছেপিঠে কোথাও আধা সেনাদের দেখা যায়নি।’ এই ব্যাপারে তৃণমূলের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন এবং ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে কংগ্রেস। দক্ষিণ মালদার সাংসদ ডালুবাবু বলেন, ‘কোনও কারণ ছাড়াই হঠাৎ করে আক্রমণ করে তৃণমূলের গুন্ডা বাহিনী। জোর যার মুল্লুক তার। আমরা কমিশনের হস্তক্ষেপ দাবি করছি।’

- Advertisement -

যদিও এই অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন তৃণমূলের মানিকচক ব্লক সভাপতি তথা প্রার্থী সাবিত্রী মিত্র। তিনি বলেন, ‘আমাদের দলের কোনও কর্মী এর সঙ্গে যুক্ত নয়। মানুষের সহানুভূতি আদায়ের জন্য কংগ্রেসের এটা সাজানো হামলার ছক।’ এদিকে এই ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে মানিকচকের রাজ্য সড়কে কয়েক ঘণ্টা অবরোধ চলে। তাতে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিঘ্নিত হয়।

এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন বিজেপি মানিকচকের বিজেপি প্রার্থী গৌরচন্দ্র মণ্ডল। তিনি বলেন, ‘তৃণমূলের মদতে রাজ্যজুড়ে গণতন্ত্রের হত্যা চলছে। তাদের রোষানল থেকে সাংসদ বিধায়ক কেউ বাদ যাচ্ছেন না। প্রার্থীদের সকলের প্রচারের অধিকার রয়েছে। কিন্তু তৃণমূলের গুন্ডাবাহিনী যেভাবে হামলা চালিয়েছে তার তীব্র নিন্দা জানানোর ভাষা নেই। নির্বাচন কমিশন নিশ্চয়ই এব্যাপারে ব্যবস্থা নেবে।’