মুখে কাপড় বেঁধে পাচারের চেষ্টা, বাস চালক সহ ধৃত ৪

103

দূর্গাপুর: আন্তঃরাজ্য বন্য প্রাণী চুরি চক্রের দুই পান্ডাকে গ্রেপ্তার করল পশ্চিম বর্ধমান জেলার দূর্গাপুর বন দপ্তর। উদ্ধার প্রায় সাড়ে ছ’শ টিয়া পাখি। ঘটনায় বাস চালক ও সহ চালককেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পাশাপাশি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বাস। এই পাচার চক্রে আরও কেউ জড়িত রয়েছি কিনা তা খতিয়ে দেখতে তদন্ত শুরু করেছে বনকর্মীরা।

বন দপ্তর সূত্রে খবর, কলকাতা-বিহার রুটকে করিডর করে পাচারকারীরা টিয়া পাখি পাচারে সচেষ্ট হয়েছিল। সূত্র মারফৎ সেই খবর পেতেই অভিযানে নামে দূর্গাপুর বন দপ্তর। শনিবার ভোর নাগাদ অভিযান চলে দক্ষিন পূর্ব চক্রের মুখ্য বনপাল কল্যাণ দাসের নেতৃত্বে। ২ নম্বর জাতীয় সড়কে বাঁশকোপা টোল প্লাজা সংলগ্ন এলাকায় দাঁড় করানো হয় নির্দিষ্ট নম্বরের বাস। তল্লাশি চালাতেই লাগেজ বাংকার থেকে উদ্ধার হয় বিপুল সংখ্যক টিয়া পাখি। এরপরেই গ্রেপ্তার করা হয় মহম্মদ গুড্ডু ও পিন্টু নামে দুই ব্যক্তিকে। দুজনেই বিহারের বাসিন্দা। অন্যদিকে, একই ঘটনায় ওই বাসের চালক ও সহ চালককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কারণ, বন দপ্তরের আধিকারিকদের এই টিয়া পাখিগুলির ব্যাপারে কোন সদুত্তর দিতে পারেনি তারা।

- Advertisement -

দক্ষিণ-পূর্ব চক্রের মুখ্য বনপাল কল্যাণ দাস জানিয়েছেন, শুধু আন্তঃরাজ্য নয়, এই টিয়াপাখিগুলি বাংলাদেশেও চলে যেত অপরাধীদের হাত ধরে। যাতে কেউ বুঝতে না পারে তার জন্য টিয়া পাখিগুলির মুখে কাপড় বেঁধে পাচার করা হচ্ছিল। ধৃতদের জেরা করে এই অপরাধ চক্রে আর কে কে আছে, তা জানার চেষ্টা করা হচ্ছে।