মানসিক অবসাদে পুকুরে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা

270

আসানসোল: মানুষদের চোখ এড়িয়ে পুকুরে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন মধ্য বয়স্কের এক মহিলা। কিন্তু পুকুরে ঝাঁপের শব্দ শুনতে পেয়ে দুই যুবক ওই মহিলাকে পুকুর থেকে উদ্ধার করেন। বৃহস্পতিবার ভরদুপুরে আসানসোলের এসবি গরাই রোডের আসানসোল জেলা হাসপাতাল সংলগ্ন রামসায়ের পুকুরের ঘটনা।

স্থানীয় সূত্রে খবর, ওই মহিলা আসানসোল দক্ষিণ থানার আসানসোল গ্রামের নামো পাড়া পিপুলতলা এলাকার বাসিন্দা। বাপি ও মিন্টু রায় নামে দুই যুবক ওই মহিলাকে প্রাণে বাঁচায়। তারাও আসানসোল গ্রামের বাসিন্দা। আসানসোল দক্ষিণ থানার পুলিশ পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে মহিলাকে তার বাড়ি পৌঁছে দিয়ে আসে।

- Advertisement -

এদিন দুপুরে রামসায়ের পুকুর সংলগ্ন রামসায়ের ময়দানে কয়েকজন যুবক ফুটবল খেলছিলো। হঠাৎ করে তারা পুকুরের জলে কিছু পড়ার শব্দ শুনতে পায়। যে শব্দটা পুকুরের উল্টো পাড়ে জঙ্গলের দিক থেকে আসে। তারা দেখে জলে চুল ভাসছে। তারা বুঝতে পারে কোন একটা মহিলা জলে পড়ে গেছে। সময় নষ্ট না করে বাপি ও মিন্টু সঙ্গে সঙ্গে পুকুরের জলে ঝাঁপিয়ে পড়ে। মিনিট কয়েকের মধ্যে তারা জল থেকে মহিলাটিকে উদ্ধার করে নিয়ে এসে পুকুর পাড়ে বসায়। ততক্ষণে খবর পেয়ে সেখানে অনেকেই চলে আসেন। দুই যুবকের সাহসিকতা ও তৎপরতায় প্রাণ বেঁচে যান ওই মহিলা।

আসানসোল গ্রামের বাসিন্দা মাধব রায় বলেন, পুকুরের অন্য পাড়ে জঙ্গলের দিক থেকে ওই মহিলা ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। মাঠে বসে থাকা যুবক বাপি ও মিন্টু তা দেখে সঙ্গে সঙ্গে পুকুরে ঝাঁপিয়ে তার প্রাণ বাঁচায়। তারা অবশ্যই মহৎ কাজের প্রমাণ দিয়েছে। উদ্ধারকারী দুই যুবক বলেন, আমরা শব্দ পেয়ে তাকিয়ে দেখি পুকুরের জলে চুল ভাসছে। প্রথমে ভাবি কেউ স্নান করছে। পরে বুঝতে পারি অন্য ব্যাপার।

আসানসোল দক্ষিণ থানার পুলিশ জানায়, আসানসোল গ্রামের নামো পাড়া পিপুলতলার বাসিন্দা ওই মহিলা। বাড়িতে তার পরিবারের সদস্যরা আছে। প্রাথমিক অনুমান পারিবারিক কারণে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন মহিলা। এ কারণেই তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।