অটোমেটিক হ্যান্ড স্যানিটাইজার আবিষ্কার করল আসানসোলের কলেজ পড়ুয়া

296

আসানসোল: বাড়িতে বা অফিসের বাইরে থাকবে অটোমেটিক স্যানিটাইজার মেশিন। সামাজিক দূরত্ব বা সোশাল ডিস্টেন্স বজায় রেখে সেই মেশিনের সামনে হাত পাতলেই বেরিয়ে আসবে স্যানিটাইজার। করোনার আবহের মধ্যে এইরকমই একটা জিনিসের প্রয়োজনীতার কথা ভেবে কলেজের অধ্যাপকদের সাহায্যে “অটোমেটিক হ্যান্ড স্যানিটাইজার” মেশিন তৈরি করল আসানসোল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের পড়ুয়া শুভ্র সুন্দর চক্রবর্তী। কলেজের ইলেকট্রিক্যাল কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রথম বর্ষের পড়ুয়া শুভ্র সুন্দর আসানসোলের বাসিন্দা।

এই মেশিনের খরচ মাত্র ৩০০ টাকা। এই মেশিনের সামনে শুধু হাত পাতলেই হবে। সেন্সারের মাধ্যমে নিজে থেকেই স্যানিটাইজার বেরিয়ে এসে হাতে পড়বে। সে ক্ষেত্রে মেশিনকে ছোঁয়ারও কোন প্রয়োজন নেই, জানান শুভ্র সুন্দর।

- Advertisement -

কলেজের অধ্যাপক সৌমেন সেন বলেন, মেশিন তৈরির সময় শুভ্র সুন্দরকে পরামর্শ দিয়েছিলাম। এই মেশিন থেকে মাইক্রো কন্ট্রোলার বাদ দেওয়া গেলে মেশিনের দাম আরও অনেক কমে যাবে। শুভ্র সুন্দর আইআর সেন্সার ও ট্রানজিস্টার দিয়ে বানিয়েছে অটোমেটিক হ্যান্ড স্যানিটাইজার মেশিন।

শুভ্র সুন্দর বলেন, মেশিনটিতে একটি ইন্ডিকেটর লাগানো হয়েছে। মেশিন ভর্তি হলে সেই ইন্ডিকেটরটি জ্বলে থাকবে। মেশিনটি বাড়ির বাইরেও রাখা যায়। বাইরে থেকে যারা আসবেন তারা সহজেই হাত স্যানিটাইজ করতে পারবেন। এছাড়াও স্কুল, কলেজ সহ বিভিন্ন জায়গায় ব্যবহার করা যাবে এই মেশিনটি।

আসানসোল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের অধ্যক্ষ পার্থপ্রতিম ভট্টাচার্য্য বলেন, অধ্যাপকরা কলেজের পড়ুয়াদের এই সময়ে অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে চেষ্টা করেছেন নতুন নতুন ভাবনা নিয়ে কাজ করতে। শুভ্র সুন্দরের তৈরি এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার মেশিন কলেজের সব ক্লাস রুমে রাখা হবে। আমরা বিভিন্ন স্কুল, কলেজকেও এই মেশিনটি ব্যবহারের অনুরোধ জানাবো।