গণ্ডার রক্ষায় সাইকেল নিয়ে প্রচারে পার্শ্বশিক্ষক

330

মালবাজার: গণ্ডার বাঁচাতে সাইকেল নিয়ে পথে পথে প্রচারে নেমেছেন পেশায় পার্শ্বশিক্ষক রামপ্রসাদ নস্কর।বিভিন্ন সময় নানা ইস্যুতে প্রচার চালানোই নেশা রামপ্রসাদবাবুর। এবার অসম থেকে গণ্ডার রক্ষায় সচেতনতামূলক প্রচার সেরে মালবাজার হয়ে বৃহস্পতিবার শিলিগুড়ির উদ্দেশে রওনা দেন তিনি। রামপ্রসাদ বাবু বলেন, ‘করোনা পর্বেও প্রচারে খামতি রাখিনি। করোনার জেরে দূষণ অনেকটা কমলেও জীব বৈচিত্র রক্ষায় প্রচার করছি। এবার গণ্ডার সচেতনতায় প্রচার করে গেলাম।’

দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুর থানার সুভাষ গ্রামের বাসিন্দা রামপ্রসাদ নস্কর। পেশায় শ্রীগুরু শিক্ষা সদন উচ্চ বিদ্যালয়ের ভূগোলের পার্শ্ব শিক্ষক। গোটা বিশ্বকে আপন করে নিতে সাইকেলই তাঁর সঙ্গী। সাইকেল চালিয়ে বছরের পর বছর দেশের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। ইতিমধ্যে আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ, লাক্ষাদ্বীপ ছাড়া দেশের সমস্ত রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে সাইকেল চালিয়ে ঘুরে বেরিয়েছেন তিনি। প্রচারে তুলে এনেছেন গঙ্গা বাঁচানো, সুন্দরবন রক্ষা, বিশ্ব উষ্ণায়ন রোধ, সবুজ রক্ষা, স্বচ্ছ ভারত অভিযানের মতো নানা বিষয়। ডুয়ার্সেও কয়েকবার এসেছেন। এবার ২৮ ডিসেম্বর অসমের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেছিলেন। অসমের কাজিরাঙ্গায় কয়েকজন সঙ্গীকে নিয়ে সাইকেল চালিয়ে গণ্ডার রক্ষায় সচেতনামূলক প্রচার চালান। সেখানে অসমের বনমন্ত্রীর সঙ্গেও দেখা হয়। অন্য সঙ্গীরা ট্রেনে করে ফিরে গেলেও রামপ্রসাদবাবু সাইকেলে করেই ফিরছেন। মাদারিহাট হয়ে বুধবার সন্ধ্যায় মাল শহরে আসেন তিনি। রাত্রি বাস করে সকালেই শিলিগুড়ি দিকে রওনা দেন। রামপ্রসাদবাবু বলেন, ‘ঘরে বসে থাকতে ভালো লাগে না। সাইকেল দূষণহীন যান। করোনা আবহে শরীর সুস্থ রাখার সাইকলের প্রাসঙ্গিকতা আরও জোরালো হয়েছে।আমিও সবার কাছে আবেদন জানিয়েছে সাইকেল চালান। সুস্থ থাকুন।’তিনি জানান, অসমের মতো জলদাপাড়া, গরুমারা জাতীয় উদ্যানগুলিতেও গণ্ডার রয়েছে। সাধারণ মানুষের কাছে গণ্ডার তো বটেই জীববৈচিত্র্য রক্ষার্থে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।রামপ্রসাদবাবুর উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে মাল শহরের পর্যটন ব্যক্তিত্ব রাজেন প্রধান বলেন, ‘রামপ্রসাদ নস্কর বহু বছর ধরেই নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তাঁর উদ্যোগকে কুর্নিশ জানাই।’

- Advertisement -